ঢাকা, বৃহস্পতিবার 20 September 2018, ৫ আশ্বিন ১৪২৫, ৯ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

জাতীয় সংসদ নির্বাচন ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে: ইসি সচিব

হেলালুদ্দীন আহমদ

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

বাংলাদেশের নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ জানিয়েছেন, আগামী ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। জানুয়ারিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা নেই। কারণ, নতুন বছরের শুরুতে শিক্ষার্থীদের স্কুল শুরু হয়ে যাবে। সে সময় নির্বাচন হলে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার ক্ষতি হবে। তাছাড়া ডিসেম্বরের শেষ দিকে শিক্ষার্থীদের ছুটি থাকে।

আজ (মঙ্গলবার) দুপুরে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন ভবনের নিজ কার্যালয়ে তিনি এ কথা জানান। হেলালুদ্দীন বলেন, ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে নির্বাচন করার জন্য সবরকম প্রস্তুতি গ্রহণের কাজ করে চলেছে ইসি। নির্বাচনকে ঘিরে এরই মধ্যে ৮০ ভাগের বেশি কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করার পরিকল্পনা ইসির আছে জানিয়ে তিনি বলেন, সে লক্ষ্যে ইসি দেড় লাখ ইভিএম কেনার জন্য পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে একটি প্রস্তাবনা পাঠিয়েছে। নির্বাচনের আগে আইন পাস, রাজনৈতিক দলগুলোর মতামতসহ সবকিছু ঠিক থাকলে সংসদ নির্বাচনের এক-তৃতীয়াংশ আসনে ইভিএম ব্যবহার করার মতো সক্ষমতা থাকবে ইসির।

ইসি সচিব বলেন, ইভিএম ব্যবহার করার আগে ভিত্তিস্বরূপ আইন দরকার। ৩০ আগস্ট কমিশন সভায় আরপিও সংশোধন-সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। তারপর সেটা ভেটিংয়ের (যাচাই-বাছাই) জন্য আইন মন্ত্রণালয়ে যাবে।

তিনি আরও বলেন, আইন পাস হলে তারপরে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে কথা বলবে কমিশন। তারপরই  চূড়ান্তভাবে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে, সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করা হবে কি হবে না।

 

তোফায়েল আহমেদ

এদিকে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এবং সরকারের বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ আসন্ন নির্বাচন উপলক্ষে আন্দোলনের নামে কেউ বিশৃঙ্খলা করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

আজ দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে ‘বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোকচিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ঢাবি শাখার আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে তোফায়েল আহমেদ  বলেন, আজকের পত্রিকায় দেখলাম নির্বাচন উপলক্ষে আমাদের বিরুদ্ধে জোট গঠন হচ্ছে। গণতান্ত্রিক আন্দোলন করার অধিকার সবার আছে। তবে কেউ যদি হরতাল/অবরোধের মাধ্যমে বিশৃঙ্খলা করে, আইনশৃঙ্খলা বিরোধী কাজ করলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীও কঠোর ব্যবস্থা নেবে।

তিনি আরো  বলেন, নির্বাচন পরিচালনা করবে নির্বাচন কমিশন। আমরা আশা করি, সব দল সে নির্বাচনে অংশ নেবে। তবে বিএনপি যদি অংশ না নেয় তাদের অবস্থা ১৯৭০ সালের ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির মতো হবে। ১৯৭০ সালে নির্বাচনে অংশ না নেয়ায় সে দলটিকে এখন আর কেউ মনে রাখে না।-পার্স টুডে

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ