ঢাকা, বৃহস্পতিবার 30 August 2018, ১৫ ভাদ্র ১৪২৫, ১৮ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রাজধানীতে বাসার গ্যারেজে গাড়িচাপায় শিশু নিহত

স্টাফ রিপোর্টার : রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বাবর রোডের একটি বাসায় পার্কিংয়ের সময় গাড়ির চাকার নিচে পড়ে পায়েল (৩) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল ১১টায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। শিশুটির লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। মোহাম্মদপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) অপূর্ব কুমার বর্মণ এই তথ্য নিশ্চিত করেন।
শিশুটির স্বজনদের বরাত দিয়ে পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘বাবর রোডের একটি বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ করেন শিশুটির মা সোনালী। গতকাল বুধবার শিশু পায়েলকে নিয়ে তার মা ওই বাসায় কাজে যান। মা বাসার ভেতরে কাজে ব্যস্ত থাকার সময় শিশুটি ওই বাসার গ্যারেজে খেলছিল। এ সময় একটি জিপ গ্যারেজে ঢোকার সময় চাকার নিচে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই শিশুটির মৃত্যু হয়।’ জিপ গাড়িটি জব্দ করাসহ চালককে আটক করা হয়েছে বলেও জানান অপূর্ব কুমার বর্মণ।

৪০০ কেজি পলিথিন জব্দ ॥ জরিমানা
লালবাগে অভিযান চালিয়ে ৪০০ কেজি পলিথিন জব্দ করেছে পরিবেশ অধিদফতর। পাশাপাশি নিষিদ্ধ ঘোষিত এ পলিথিন তৈরির দুটি প্রতিষ্ঠানকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল বুধবার পরিবেশ অধিদফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী তামজীদ আহমেদের নেতৃত্বে এ অভিযান চালানো হয়।
অভিযানে লালবাগ থানার ইসলামবাগ এলাকার মো. আতিকুল ইসলামের পলিথিন তৈরির দু’টি কারখানা থেকে ৪০০ কেজি পলিথিন ও কাঁচামাল (পলিমার) জব্দ করা হয়। পাশাপাশি প্রতিষ্ঠান দু’টিকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী তামজীদ আহমেদ জানান, পলিথিনের বিরূপ প্রতিক্রিয়ায় পরিবেশ ও প্রতিবেশের মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে। এরই মধ্যে পলিথিনের যথেচ্ছ ব্যবহারের ফলে ঢাকা শহরের অনেক নদীনালা, ড্রেন বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে সামান্য বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি হচ্ছে। নিষিদ্ধ ঘোষিত পলিথিন তৈরির কারখানার বিরুদ্ধে পরিবেশ অধিদফতরের এনফোর্সমেন্ট অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।
অভিযানে পরিবেশ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক সালমান চৌধুরী শাওন, নমুনা সংগ্রহকারী রাসুল ইয়া বারী কামাল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রত্নসম্পদসহ পাচারচক্রের সদস্য গ্রেফতার
বিপুল পরিমাণ প্রত্নসম্পদ উদ্ধারসহ মো. মনিরুল ইসলাম নামের আন্তর্জাতিক পাচারকারীচক্রের এক সদস্যকে গ্রেফতার করেছে ডিএমপি’র গোয়ন্দা ও অপরাধ তথ্য (পূর্ব) বিভাগ। সোমবার রাত ৯টার দিকে ভাটারা থানার নর্দ্দা (বসুন্ধরা) এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) গাড়ি চুরি/ছিনতাই প্রতিরোধ ও উদ্ধার টিম। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. মাসুদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।এ সময় তার হেফাজত থেকে ১০টি কষ্টি ও বেলে পাথরের মূর্তি, ১৮টি বিভিন্ন ধরনের ধাতব মুদ্রা, একটি প্রাচীন তাম্রলিপি ও কয়েকটি প্রাচীন স্মারক উদ্ধার করা হয়।
ডিএমপির ডিসি জানান, উদ্ধারকৃত প্রত্নসম্পদ দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে এজেন্টদের মাধ্যমে সংগ্রহ করে বিদেশে পাচারের উদ্দেশ্যে মনিরুল ইসলাম নিজ হেফাজতে রেখেছিলেন বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছেন। আসামীর বিরুদ্ধে ভাটারা থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
 গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) সূত্রে জানা গেছে, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের প্রফেসর ড. সুফি মুস্তাফিজুর রহমান ও ঐতিহ্য অন্বেষণ উপ-পরিচালক শারমিন রেজওয়ানার নেতৃত্বে একটি দল উদ্ধারকৃত এসব পুরাকীর্তি পরিদর্শন করেন। এসব পুরাকীর্তি আসল বলে প্রাথমিকভাবে তারা মত দিয়েছেন। তারা বলেন, উদ্ধারকৃত প্রতিটি প্রত্ননিদর্শনই দেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্যের জন্য অমূল্য সম্পদ। এরমধ্যে কিছু কিছু নিদর্শন অত্যন্ত দুর্লভ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ