ঢাকা, বৃহস্পতিবার 30 August 2018, ১৫ ভাদ্র ১৪২৫, ১৮ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রাজাপুর সংবাদ

ঝালকাঠি সংবাদদাতা: ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার দক্ষিন আঙ্গারিয়া গ্রামে মামার বাড়ি থেকে কিশোরী রিমা আক্তার (১৫) এর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার সকালে উপজেলার দক্ষিন আঙ্গারিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রিমা আক্তার ঢাকা কেরানীগঞ্জের চুনকুটিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী ও উপজেলার দক্ষিণ আঙ্গারিয়া গ্রামের মিরন তালুকদারের মেয়ে। পারিবারিক সূত্রে জানাগেছে, রিমার বাবার চাকুরির সুবাদে সে তার পরিবারের সাথে দীর্ঘদিন ধরে ঢাকার কেরানীগঞ্জে বসবাস করে আসছে। ঈদুল আযহা উপলক্ষে পরিবারের সাথে তার মামা কামাল হোসেন’র বাড়িতে বেড়াতে আসেন। সকাল ৯ টার দিকে রিমা ঘুম থেকে ওঠে এরপর তাকে তার পরিবার সকালের নাস্তার জন্য ডাকলে কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে তাকে দেখতে গিয়ে আড়ার সাথে ওড়না পেচিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়।  সাথে সাথে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন। এ বিষয়ে রাজাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসুল আরেফিন জানান,“আমরা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে থেকে লাশ উদ্ধার করেছি। ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে মরদেহের ময়না তদন্ত  শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছি।”
শোক র‌্যালি
ঝালকাঠিতে পাদুকা শিল্প ঐক্য পরিষদ (দলিত) এর উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস ও বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে শোক সভা ও বিশেষ প্রার্থনা করেছে সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। গতকাল সকালে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সামনে সংগঠনের অস্থায়ী কার্যালয়ে এক শোক সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য দেন সংগঠনের সভাপতি তরুন রবি দাস, সহসভাপতি গোপাল দাস, তপন দাস, সাধারন সম্পাদক জনি দাস, যুগ্ম সম্পাদক বিপ্লব দাস, সাংগঠনিক সম্পাদক সুরেন দাস, কোষাদ্যক্ষ রতন দাস, সর্বজিত দাস, প্রচার সম্পাদক সুজন দাস, সদস্য তারক দাস প্রমুখ। আলোচনা শেষে ১ মিনিট নিরবতা পালন করে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করে বিশেষ প্রার্থনা করেন।
ঈদ পুনর্মিলনী
“মানবতার টানে, রক্তের সন্ধানে, রক্তের বন্ধন” এ প্রতিপাদ্য বিষয় নিয়ে পথচলা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন রক্তকণিকা ঝালকাঠি টিমের ঈদ পুনর্মিলনী ও বার্ষিক সাধারন সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত সোমবার সকালে শহরের পৌর মিনি পার্কে পুনর্মিলনী ও সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় উপস্থিত ছিলেন রক্ত কণিকা টিমের সদস্য মোঃ নয়ন হাওলাদার, মোঃ ওয়াসিম খান, মোঃ ইয়াসিন মামুন, সনিয়া আক্তার, মোসাঃ শান্তা, সালমা আক্তার, মোসাঃ তানিয়া আক্তার, আকাশ সরকার, সজিব ফরাজি, সৈয়দ আলী হাসান, মোঃ খালিদ সাইফুল্লাহ, সাকিব নির্ঝর, মোঃ নাইমুল ইসলাম, শাওন ফরাজী, খাদিজা আক্তার, মারুফা আক্তার, সনিয়া আক্তার, ইমরান, জহির, মোঃ সাগর, তৃয়াশা মোদক, লুৎফুন্নাহার ঐশী, রাসেল খান, মোঃ আতিকুর রহমান, সোলায়মান তালুকদার, মোঃ জমিস বিশ্বাস।
সভায় বক্তারা জানান, আমাদের প্রধান কাজ হলো মুমুর্ষ রোগীর জীবন বাঁচাতে স্বেচ্ছায় রক্ত দান করা। এছাড়াও মাদককে না বলা, ক্যান্সার রোগীদের প্লাটিলেভ দেয়া, বাল্যবিবাহ রোধ, দুঃসময়ে মানুষের পাশে দাড়ানো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ