ঢাকা, শুক্রবার 31 August 2018, ১৬ ভাদ্র ১৪২৫, ১৯ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

প্রতিবাদে ভারতের রাজপথে জনতা

৩০ আগস্ট, আনন্দবাজার : এত দিন ভারতে চর্চা চলছিল ‘অঘোষিত জরুরি অবস্থা’ নিয়ে। কিন্তু ভারতের নানা রাজ্য থেকে মানবাধিকার আন্দোলন ও সমাজকর্মীদের ধরপাকড়ের ঘটনাকে সরাসরি ‘গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধ’আখ্যা দিচ্ছেন বামপন্থীরা। ভারতের ধৃত কবি ও সমাজকর্মী ভারাভারা রাও বা ট্রেড ইউনিয়ন নেত্রী ও আইনজীবী সুধা ভরদ্বাজের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ সিপিআই (এম-এল) লিবারেশনের।ওই দলের সাধারণ সম্পাদক দীপঙ্কর ভট্টাচার্য বুধবার বলেন, ‘এখন আর অঘোষিত জরুরি অবস্থা নয়। গণতন্ত্রের বিরুদ্ধেই যুদ্ধ ঘোষণা করেছে মোদী সরকার!’ সমাজকর্মী ও আইনজীবীদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে, বৃহস্পতিবার দিল্লির সংসদ মার্গে বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে বামপন্থী গণসংগঠনগুলি।কলকাতাতেও গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে ধর্মতলা থেকে এন্টালি পর্যন্ত মিছিল হবে। নাট্য অ্যাকাডেমিতে আজই বৈঠকে বসছেন কলকাতার বিশিষ্ট জনেরা। তাদের তরফেও শহরে একটি প্রতিবাদ সভা হওয়ার কথা। কলকাতায় প্রতিবাদের প্রস্তাব দিয়ে এ দিন বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসুর সঙ্গে কথা বলেন লিবারেশনের রাজ্য সম্পাদক পার্থ ঘোষ।যা মেনে নিয়ে মিছিলের কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন পার্থ ও বিমানবাবু। পার্থবাবুর কথায়, ‘জরুরি অবস্থা ঘোষণা হয়েছিল রাতের অন্ধকারে। এখন দিনের আলোয় বেআইনি কাজ করা হচ্ছে!’বিবৃতিতে বিমানবাবুরও অভিযোগ, ‘যারাই প্রতিবাদ করছেন, তাদের হয় খুন করা হচ্ছে নয়তো গ্রেপ্তার করে, মিথ্যা মামলা দিয়ে হেনস্থা করা হচ্ছে। বোঝাই যাচ্ছে, মোদী সরকার দেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার ও নাগরিক স্বাধীনতা কেড়ে নিতে চাইছে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ