ঢাকা, শুক্রবার 31 August 2018, ১৬ ভাদ্র ১৪২৫, ১৯ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সাব্বির-নাসির ও সৈকতকে ডেকেছে বিসিবি শৃঙ্খলা কমিটি

স্পোর্টস রিপোর্টার : তিন ক্রিকেটার সাব্বির-নাসির ও সৈকতের শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে অবশেষে গতকাল বিসিবিতে সিনিয়র কয়েকজন কর্মকর্তার সঙ্গে এসব বিষয়ে বৈঠক করেন সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। বৈঠক শেষে তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, ডিসিপ্লিনারি কমিটির সামনে হাজির হতে হবে এই তিন ক্রিকেটারকে। আগামী শনিবার সকাল ১১টায় মিরপুর জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামস্থ বিসিবি কার্যালয়ে ডিসিপ্লিনারি কমিটির মুখোমুখি হওয়ার জন্য বলা হয়েছে সাব্বির রহমান, নাসির হোসেন ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতকে। কারণ বারবার শৃঙ্খলা ভঙ্গের কাজ করছেন জাতীয় দলের ক্রিকেটার সাব্বির রহমান রুম্মন। নানা সময়ে বড় ধরনের আর্থিক জরিমানাও করা হয়েছে তাকে। তবুও সাব্বিরের বিপক্ষে অভিযোগের শেষ নেই। যে কারণে সাব্বির রহমানের বিষয়টা বেশ গুরুত্বের সহকারে গ্রহণ করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। একই সঙ্গে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ রয়েছে ক্রিকেটার নাসির হোসেনের বিষয়েও। নারী কেলেঙ্কারির অভিযোগ রয়েছে তার নামেও। যা জাতীয় ক্রিকেট দলকেই প্রকারান্তরে ক্ষতিগ্রস্ত করছে। এ দু’জনের সঙ্গে সর্বশেষ যোগ হয়েছে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের বিষয়টি। তার নামে স্ত্রীর করা নারী নির্যাতনের মামলা। যদিও মোসাদ্দেক সৈকত জানিয়েছেন, তিনি স্ত্রীকে তালাক দিয়েছেন। বিসিবির ডিসিপ্লিনারি কমিটির চেয়ারম্যান হচ্ছেন বোর্ডের অন্যতম পরিচালক শেখ সোহেল। কমিটির অন্যতম সদস্য বিসিবির মিডিয়া কমিটির সভাপতি জালাল ইউনুস। ডিসিপ্লিনারি কমিটির সামনে হাজির হওয়ার পর তিন ক্রিকেটারের কাছ থেকে তাদের বক্তব্য নেয়া হবে। ক্রিকেটারদের নৈতিক স্থলনের বিষয়টিকেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়ে দেখছে বিসিবি। সে সম্পর্কেই সিদ্ধান্ত নেয়া হতে পারে ওই শুনানির পর। বিসিবির ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা গেছে, সাব্বির রহমান রুম্মনের ওপরই খড়গটা নেমে আসতে পারে সবচেয়ে বেশি। বেশ কয়েকবার তাকে আর্থিক শাস্তি  দেয়া হয়েছে। এরপরও সাব্বির সঠিক পথে আসেননি। বরং, আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন। যদি তার কাছ থেকে সঠিক জবাব পাওয়া না যায়, তাহলে অন্তত এক থেকে দুই বছরের জন্যও নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়তে পারেন জাতীয় দলের এই ক্রিকেটার। নাসির হোসেন এবং মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের কাছ থেকেও যদি সন্তোষজনক জবাব না পাওয়া যায়, তাহলে তাদের ওপরও নেমে আসতে পারে শাস্তির খড়গ। তবে সব কিছুই নির্ভর করছে, তিন ক্রিকেটারের ডিসিপ্লিনারি কমিটির সামনে হাজির হয়ে দেয়া মন্তব্যের ওপর।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ