ঢাকা, শনিবার 1 September 2018, ১৭ ভাদ্র ১৪২৫, ২০ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ইভিএম নিয়ে ইসির পদক্ষেপ সন্দেহজনক

আগামী জাতীয় সংসদকে কেন্দ্র করে ১০০ আসনে বিশেষ দল বা গোষ্টিতে বিশেষ অনৈতিক সুবিধা প্রদান করতেই ইভিএমের (ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন) বিষয়টিকে দ্রুত আরপিওতে সংযোজন করা হচ্ছে বলে অভিমত প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ ন্যাপ'র আলোচনায় উপস্থিত নেতৃবৃন্দ। তারা বলেন, ইসির সাথে সংলাপে যেখানে দেশের অধিকাংশ রাজনৈতিক দল ইভিএমের বিপক্ষে মতামত প্রদান করেছেন সেখানে ইভিএমের পক্ষে ইসি তথা নির্বাচন কমিশনের ইভিএমের পক্ষে গৃহীত পদক্ষেপ সন্দেহজনক। দেশবাসীর মনে সন্দেহ সৃষ্টি হচ্ছে নির্বাচন কমিশন বিশেষ কোন দল বা গোষ্টিকে বিশেষ সুবিধা দিতেই এই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।
গতকাল শুক্রবার নয়াপল্টনস্থ যাদু মিয়া মিলনায়তনে "বাংলাদেশ ন্যাপ'র সাবেক চেয়ারম্যান, সাবেক মন্ত্রী শফিকুল গানি স্বপনের ৯ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ আয়োজিত স্মরণসভায় আলোচকবৃন্দ এসব কথা বলেন। ন্যাপ মহানগর সদস্য সচিব মো. শহীদুননবী ডাবলু'র সভাপতিত্বে প্রধান আলোচক হিসাবে বক্তব্য রাখেন ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন গণতান্ত্রিক ঐক্যের আহ্বায়ক কমরেড রফিকুল ইসলাম, ন্যাপ ভাইস চেয়ারম্যান কাজী ফারুক হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল ভুইয়া, নগর যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম, যুবনেতা আবদুল্লাহ আল কাউছারী প্রমুখ।
ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া শফিকুল গানি স্বপনের অমর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, তারঁ মত মেধাবী রাজনীতিবিদ আজকের সমাজে বড়ই বিরল। তিনি আজীবন দেশ, মাটি-মানুষ ও গণতন্ত্রের জন্য রাজনীতি করেছেন। জাতীয়তাবাদী ও দেশপ্রেমিক রাজনীতির এক উজ্জল নক্ষত্র ছিলেন তিনি। তিনি বলেন, পৃথিবীর শতকরা ৯০ ভাগ দেশে ই-ভোটিং পদ্ধতি নেই। যে কয়েকটি দেশ এটি চালু করেছিল, তারাও ইতোমধ্যে তা নিষিদ্ধ করেছে। ২০০৬ সালে আয়ারল্যান্ড ই-ভোটিং পরিত্যাগ করে। ২০০৯ সালের মার্চ মাসে জার্মানির ফেডারেল কোর্ট ইভিএমকে অসাংবিধানিক ঘোষণা দেয়। একই বছর ফিনল্যান্ডের সুপ্রিম কোর্ট ইভিএমে সম্পন্ন তিনটি মিউনিসিপ্যাল নির্বাচনের ফলাফল অগ্রহণযোগ্য বলে ঘোষণা করেন। এমন অসংখ্য উদাহরণ রয়েছে আমাদের সামনে। এমনকি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র আমেরিকার ২২টির বেশি অঙ্গরাজ্যে এটিকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে এবং অন্যগুলোতেও তা নিষিদ্ধ হওয়ার পথে।
তিনি আরো বলেন, এই অবস্থার মধ্যে বাংলাদেশের নির্বাচন কমিশন কেন ইভিএমের পক্ষে অবস্থান গ্রহণ করছে এই প্রশ্ন দেশবাসীর মনে উদ্বেগ হওয়াটা খুবই স্বাভাবিক। তিনি অবিলম্বে আগামী নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার জন্য নির্বাচন কমিশনের প্রতি আহ্বান জানান। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ