ঢাকা, শনিবার 1 September 2018, ১৭ ভাদ্র ১৪২৫, ২০ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ফল পুনঃনিরীক্ষণ ফেল থেকে পাস ৭৭৮ এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা

শি.রি: সারা দেশের ১০টি শিক্ষাবোর্ডের মধ্যে ৮শিক্ষা বোর্ডে এইচএসসি ও সমমানের ফল পুনঃনিরীক্ষণের ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে। এতে নতুন করে বেড়েছে জিপিএ-৫ প্রাপ্তির সংখ্যার পাশপাশি ফেল থেকে পাস। প্রথমবার ফেল করা অনেক শিক্ষার্থীর জিপিএ-৫ পাওয়ার ঘটনাও ঘটেছে।
বোর্ডগুলোর প্রাপ্ত তথ্যমতে, চলতি বছর ৮টি শিক্ষাবোর্ডে প্রায় ৩ হাজার ২৯১ জন শিক্ষার্থীর প্রাপ্ত নম্বর পরিবর্তন হয়েছে। এরমধ্যে ফেল থেকে পাস করেছে ৭৭৮ জন এবং নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৮৬ জন। বাকিদের বিভিন্ন গ্রেডে ফল পরিবর্তন হয়েছে। সবচেয়ে বেশি ফল পরিবর্তন হয়েছে ঢাকা বোর্ডে। এ বোর্ডে মোট ১ হাজার ৮৮৮ জনের ফল পরিবর্তন হয়েছে। যার মধ্যে ফেল করে পাস করেছে ৫৪০ জন। নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৬৪ জন।  চট্টগ্রাম বোর্ডে ৪০৯ জনের ফল পরিবর্তন হয়েছে। এরমধ্যে নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১০৮ জন, ফেল থেকে পাস করেছে ৭৩ জন। দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডে মোট ৩৬২ জনের ফল পরিবর্তন হয়েছে। এরমধ্যে ফেল থেকে পাস করেছে ২৪ জন, নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৬২ জন। সিলেট বোর্ডে মোট ৫৫ জনের ফল পরিবর্তন হয়েছে। এরমধ্যে ফেল থেকে পাস করেছে ১৭ জন, নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১৫ জন। কুমিল্লা বোর্ডে মোট ২৩৯ জনের ফল পরিবর্তন হয়েছে। এরমধ্যে ফেল থেকে পাস করেছে ৬৪ জন ও নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭ জন। বরিশাল শিক্ষাবোর্ডে মোট ১৮ জনের ফল পরিবর্তন হয়েছে, এরমধ্যে নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন, তবে ফেল থেকে নতুন করে কোনো শিক্ষার্থী পাস করেনি।
যশোর বোর্ডে মোট ১০৮ জনের ফল পরিবর্তন হয়েছে। এরমধ্যে নতুন করে পাস করেছে ৪১ জন, নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২১ জন। মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডে মোট ফল পরিবর্তন হয়েছে ৭২ জন পরীক্ষার্থীর, এর মধ্যে ফেল থেকে পাস করেছে ১৯ জন, নতুন করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭ শিক্ষার্থী।
বোর্ড কর্মকর্তারা বলছেন, পুনঃনিরীক্ষণে সাধারণত মোট চারটি দিক দেখা হয়। এগুলো হলোÍউত্তরপত্রে সব প্রশ্নের সঠিকভাবে নম্বর দেয়া হয়েছে কি না, প্রাপ্ত নম্বর গণনা ঠিক হয়েছে কি না, প্রাপ্ত নম্বর ওএমআর শিটে উঠানো হয়েছে কি না এবং প্রাপ্ত নম্বর অনুযায়ী ওএমআর শিটে বৃত্ত ভরাট ঠিক আছে কি না। এসব বিষয় পরীক্ষা করেই পুনঃনিরীক্ষার ফল দেয়া হয়েছে বলে বোর্ড কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ