ঢাকা, শুক্রবার 21 September 2018, ৬ আশ্বিন ১৪২৫, ১০ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ব্রহ্মপুত্র-যমুনার তীরে বন্যার আশঙ্কা, শরীয়তপুর ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নদী ভাঙন

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

বাংলাদেশের ভেতর দিয়ে প্রবাহিত ব্রহ্মপুত্র-যমুনার তীরে এ সপ্তাহে ছোটখাট বন্যার আশঙ্কা করছে সরকারের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র।

গতকাল (শুক্রবার) এ পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে, উজান থেকে পানি নেমে, ব্রহ্মপুত্র-যমুনা নদের পানির সমতল বৃদ্ধি পাচ্ছে, যা আগামী ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।

ব্রহ্মপুত্র নদের উৎপত্তিস্থলে চীনের তিব্বত অংশে ভারী বর্ষণের ফলে উজানে ফুঁসে উঠেছে পানি। উত্তর-পূর্ব ভারতের অরুণাচল-আসামে ব্রহ্মপুত্রের পানি বৃদ্ধি পেয়েছে ব্যাপক মাত্রায়। ইতোমধ্যে ভারতকে বন্যা সতর্কতার কথা জানিয়েছে চীন।

উজানে পানি বৃদ্ধির কারণে ব্রহ্মপুত্র-যমুনা নদের ভাটিতে অবস্থিত বাংলাদেশের দিকে ধেয়ে আসতে পারে ঢল। বর্তমানে এই দুই নদীর পানি বৃদ্ধির দিকে রয়েছে। পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে নদী ভাঙনও ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে।

এ প্রসঙ্গে, বাংলাদেশের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান ভূঁইয়া রেডিও তেহরানকে বলেন, ব্রহ্মপূত্রের উৎস স্থল চীনের তিব্বত অঞ্চলে বৃষ্টি ও পানি বৃদ্ধির পূর্বাভাস আমরা আগেই জানতে পেরেছি। সেভাবে আমরাও আমাদের পূর্বাভাস দিয়ে রেখেছি। তবে এটা তেমন তীব্র আকারের কিছু হবে না।

তিনি আরো জানান, বছরের এ সময়টাতে বর্ষা শেষে নদীর পানি দ্রুত বঙ্গোপসাগরের দিকে নেমে যেতে থাকে ফলে যমুনা, মেঘনা ও পদ্মার তীরে ভাঙন দেখা দেয়। এ ব্যাপারে এখনো কোনো পূর্বাভাস দেয়া সম্ভব হচ্ছে না।

 

কুড়িগ্রামের উলিপুরে এক বছর আগে নির্মিত গ্রোয়েন বাঁধটি  তিস্তার ভাঙনের হুমকির মুখে পড়েছে।

এদিকে, তীব্র স্রোতে পদ্মার গতিপথ পরিবর্তন হয়ে শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া ও জাজিরা উপজেলায় গত দু’মাস ধরে চলছে নদী ভাঙন। এতে অন্তত: দু’শ' পরিবার তাদের বাড়িঘর ফল ও ফসলের জমি হারিয়ে সর্বশান্ত হয়েছে।

স্থানীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ভাঙন রোধে তীর সুরক্ষা প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে কিন্তু আগামী নভেম্বরের আগে সেখানে কাজ শুরু করা সম্ভব নয়।

ওদিকে, মেঘনার ভাঙনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার দু’টি গ্রাম বিলীন হয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত লোকজন ভাঙন রোধে সরকারী পদক্ষেপের দাবিতে গতকাল শুক্রবার সোনা বালুয়া গ্রামে মেঘনার তীরে মানববন্ধন করেছে। 

অপরদিকে,  নদী ভাঙন ঠেকাতে জাতীয় সংসদের পাশাপাশি প্রয়োজনে বাইরেও আন্দোলন গড়ে তোলার হুঁশিয়ারি ঘোষণা করেছেন গাইবান্ধা-১ সুন্দরগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী।  

এদিকে, আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, মৌসুমী বায়ু এখনো বাংলাদেশের উপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারী অবস্থায় বিরাজমান রয়েছে। এর প্রভাবে আগামী ৭২ ঘণ্টার শেষের দিকে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বৃদ্ধি পেতে পারে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ