ঢাকা, রোববার 2 September 2018, ১৮ ভাদ্র ১৪২৫, ২১ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ময়মনসিংহে পুলিশের বাধায় বিএনপির মিছিল পণ্ড ॥ আহত ২৫

ময়মনসিংহ সংবাদদাতা : ময়মনসিংহে পুলিশের বাধায় বিএনপির বিক্ষোভ-মিছিল প- হয়ে গেছে। পুলিশের লাঠিচার্জে বিএনপির ২৫ নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন বলে দলটির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে।
আহতরা হলেন- ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম-সম্পাদক শেখ কাদির, সুরুজ, কায়ছার, কর্মী আলফাজ উদ্দিন সজীব, আরিফ, সিজার, বাবু, মোস্তাক, সামাদ, শামীম, পারভেজ, শাকিল, মুন্না, রাব্বি, সুমন মিয়া, মারুফ, মুক্তা, মাহামুদ, পারভেজ, নায়িম, মাহমুদ, সৌমিক, নাদিম, রিফাত, বাবু, পল্লব, আকাশ প্রমুখ। বিএনপির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবাষির্কী উপলক্ষে গতকাল শনিবার  দুপুরে মিছিলে নিয়ে শহরের হরিকিশোর রায় রোডের দলীয় কার্যালয়ে যাওয়ার পথে নতুন বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মাহাবুর রহমান রানা জানান, মিছিল নিয়ে দলীয় কার্যালয়ে যাওয়ার পথে পুলিশ লাঠির্চাজ করে ধাওয়া দেয়। এতে বিএনপি ২৫ থেকে ৩০জন নেতা-কর্মী আহত হয়। আহতদের মধ্যে অনেকেই ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।দলীয় সূত্র জানা যায়, সংগঠনের সভাপতি মাহবুবুর রহমান রানা ও সাধারণ সম্পাদক আবু দাউদ রায়হানের নেতৃত্বে একটি মিছিল দলীয় কার্যালয়ে যাওয়ার পথে নতুন বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।একই সময়ে মহানগর ছাত্রদল সভাপতি নাইমুল করিম লুইন ও সাধারণ সম্পাদক তানভীর আহমেদ রবিনের নেতৃত্বে অপর একটি মিছিল দলীয় কার্যালয়ে আসার আগেই পুলিশের ধাওয়া ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।জানা যায়, বিএনপির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবাষির্কী উপলক্ষে দুপুর ১২টা দিকে সাবেক প্রতিমন্ত্রী একেএম মোশাররফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দ, সাংগঠনিক সম্পাদক আলমগীর মাহমুদ আলমের নেতৃত্বে কার্যালয়ে অবস্থায় নেয় বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।এ সময় র‌্যাব-ডিবি ও পুলিশের একাধিক টিম তাদের দলীয় কার্যালয় থেকে বের হয়ে যেতে বাধ্য করে বলে দলটির নেতা-কর্মীরা অভিযোগ করেন। পরে তারা জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক প্রতিমন্ত্রী একেএম মোশাররফ হোসেনের বাসায় সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবু ওয়াহাব আকন্দ বলেন, অনুমতি নিয়েই প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচি পালনের জন্য দলীয় কার্যালয়ে সমবেত হয়েছিলাম। কিন্তু পুলিশ আমাদের দলীয় কার্যালয়ে বসতে দেয়নি। উল্টো লাঠিচার্জ করে অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীদের ধাওয়া দিয়েছে। দলটির নেতা-কর্মীরা দাবি করেন, দলীয় কার্যালয়ে পুলিশ কর্মসূচি পালন করতে না দিলেও শহরের বিভিন্ন এলাকায় বিচ্ছিন্নভাবে মিছিল করেছে কোতোয়ালি বিএনপি, যুবদল, শ্রমিক দল, দক্ষিণ ও উত্তর জেলা ছাত্রদলের নেতা-কর্মীরা। তবে কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল ইসলাম  জানান, বিএনপির দাবি ঠিক নয়। পুলিশ কোনো লাঠিচার্জ করেনি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ