ঢাকা, রোববার 2 September 2018, ১৮ ভাদ্র ১৪২৫, ২১ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ইভিএমের ব্যাপারে জনমনে অনেক সন্দেহ রয়েছে -এরশাদ

স্টাফ রিপোর্টার: জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, আমাদের মানুষ তো টিপসই দিতে পারে না, ইভিএমে টিপ দেবে কীভাবে? এতগুলো আসনে যদি একসঙ্গে ইভিএম হয়, তবে তার সফলতা নিয়ে আমরা নিশ্চিত নই।
এরশাদ বলেন, ইভিএমের ব্যাপারে জনমনে অনেক সন্দেহ রয়েছে। তাই এই ভোটিং পদ্ধতি চালুর আগে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা প্রয়োজন। সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ নির্বাচনের স্বার্থে তা না করে ইভিএম জনগণের ওপর চাপিয়ে দেওয়া ঠিক হবে না।
গতকাল শনিবার রাজধানীর বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের কার্যালয়ের এক যোগদান অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নে ইভিএম-এ ভোটগ্রহণের সফলতা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এরশাত তার সংশয়ের কথা জানান। অনুষ্ঠানে এরশাদের হাতে ফুল দিয়ে জাতীয় পার্টিতে যোগ দেন কুড়িগ্রাম সদরের আওয়ামী লীগ নেতা পনির উদ্দিন আহমেদ। আসন্ন সংসদ নির্বাচনে তিনি কুড়িগ্রাম-২ আসন থেকে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশী। অনুষ্ঠানে জাতীয় পার্টির মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য মো. হাফিজ উদ্দিন, মসিউর রহমান রাঙা, সুনীল শুভ রায়, মেজর (অব) খালেদ আখতারসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
ইভিএম নিয়ে জাতীয় পার্টির মতামত প্রসঙ্গে এরশাদ বলেন, আগামী বুধবার জাতীয় পার্টির এক বর্ধিত সভায় বিষয়টি নিয়ে দলের চূড়ান্ত  সিদ্ধান্ত হবে।
এরশাদ বলেন, বিএনপি নির্বাচনে না গেলে তারা আলাদাভাবে নির্বাচনে অংশ নেবেন। যদি তারা আসে, তবে অন্যভাবে নির্বাচন করব। চেষ্টা করলে আমরা ক্ষমতায় যেতে পারব। সে অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে।
কামাল হোসেনের গণফোরামকে সঙ্গে নিয়ে বি চৌধুরীর যুক্তফ্রন্টের জাতীয় ঐক্যের উদ্যোগকে কীভাবে দেখছেন- সাংবাদিকদের এ প্রশ্নে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, আমি আমার জোট নিয়ে আছি।
প্রসঙ্গত. ২০১৭ সালের মে মাসে এরশাদ ‘ইসলামী মূল্যবোধের’ নতুন জোট সম্মিলিত জাতীয় জোট (ইউনাইটেড ন্যাশনাল অ্যালায়েন্স) গঠনের ঘোষণা দেন। তাতে যোগ দেয় জাতীয় ইসলামী মহাজোট, বাংলাদেশ জাতীয় জোট, ইসলামিক ফ্রন্ট, বাংলাদেশ জাতীয় জোট। পরে খেলাফত মজলিসকে নিয়ে জোটভুক্ত দলের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে পাঁচে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ