ঢাকা, সোমবার 3 September 2018, ১৯ ভাদ্র ১৪২৫, ২২ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আওয়ামী লীগের অধীনে নির্বাচন হবে না ॥ আজ্ঞাবহ না হতে পুলিশের প্রতি আহ্বান খুলনা মহানগর বিএনপির

খুলনা অফিস : বিএনপির ৪০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কর্মসূচি পালিত হওয়ার পরপর দলের নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি পুলিশের তল্লাশি অভিযান ও গণগ্রেফতারের ঘটনার তীব্র নিন্দা এবং অবিলম্বে গ্রেফতারকৃতদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেছে মহানগর বিএনপি। 

মহানগর বিএনপির এক যৌথ সভা থেকে এ দাবি জানিয়ে বিএনপি নেতারা বলেন, পুলিশকে মনে রাখতে হবে আগামী নির্বাচন কোন মতেই শেখ হাসিনার অবৈধ অনির্বাচিত সরকারের অধীনে হবেনা। নির্বাচন হবে অবাধ, নিরপেক্ষ ও নির্দলীয় সরকারের অধীনে। জনগণের ট্যাক্সের টাকায় যাদের বেতন-ভাতা হয়, কোন সরকারের আজ্ঞাবহ হওয়ার প্রয়োজন তাদের নেই। নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপির নেতাকর্মীদের গণগ্রেফতার করে আওয়ামী লীগের জন্য মাঠ পরিষ্কার করার দায়িত্ব পালন করার কোন প্রয়োজনীয়তা পুলিশের নেই। সরকারের নীলনকশা বাস্তবায়নের দায়িত্ব যারা অতিউৎসাহের সাথে পালন করছেন তাদেরকে যথাসময়ে জবাবদিহি করতে হবে। 

গতকাল রোববার দুপুর সাড়ে ১২ টায় নগরীর কেডি ঘোষ রোডস্থ দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও মহানগর সভাপতি সাবেক এমপি নজরুল ইসলাম মঞ্জু। 

বর্ণাঢ্য আয়োজনে পহেলা সেপ্টেম্বর হাজার হাজার নেতাকর্মীর স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে দলের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়। বিকেল থেকে রাতভর জেলা পুলিশ ও গোয়েন্দা পুলিশ অভিযান চালিয়ে রূপসা, ডুমুরিয়া, তেরখাদা ও ফুলতলা থেকে প্রায় ২০ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে। 

সভা থেকে বিএনপির মহাসচিব ঘোষিত দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও নির্বাচন সংক্রান্ত ৪ দফা প্রস্তাবনা মেনে নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানানো হয়।  সভা থেকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে ৩ সেপ্টেম্বর বিকেল ৪ টায় খুলনা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আলোচনা সভা সফল করার জন্য দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানানো হয়। এছাড়া আগামী ১১ সেপ্টেম্বর দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে খুলনা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আলোচনা সভা সফল করার জন্য দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানানো হয়। 

সভা থেকে বিএনপির ৪০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে গৃহীত চার দিনের কর্মসূচির অংশ হিসেবে ৪ সেপ্টেম্বর বিকেল ৪ টায় নিউজপ্রিন্ট মিলস শ্রমিক ক্লাবে খালিশপুর থানা বিএনপির, ৫ সেপ্টেম্বর বিকেল ৪ টায় কেসিসির ৫ নং ওয়ার্ড কমিউনিটি সেন্টারে দৌলতপুর থানা বিএনপির এবং ৭ সেপ্টেম্বর বিকেল ৪টায় জনতা মার্কেট চত্বরে খানজাহান আলী থানা বিএনপির আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে বলে সিদ্ধান্ত হয়। 

সভা থেকে ১ সেপ্টেম্বর বিএনপির ৪০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কর্মসূচি সফল করায় বিএনপি এবং অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদেরকে ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানানো হয়। 

সভা থেকে দৌলতপুর থানার বিভিন্ন এলাকায় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং তারেক রহমানের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে টানানো প্যানা, প্লাকার্ড ভাংচুর এবং পোস্টার ছিড়ে ফেলার তীব্র নিন্দা জানানো হয়। 

সভায় উপস্থিত ছিলেন কেসিসির মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, শেখ মোশারফ হোসেন, জলিল খান কালাম, সিরাজুল ইসলাম, এডভোকেট ফজলে হালিম লিটন, রেহানা আক্তার, স ম আব্দুর রহমান, ফখরুল আলম, অধ্যাপক আরিফুজ্জামান অপু, মাহবুব কায়সার, আসাদুজ্জামান মুরাদ, মহিবুজ্জামান কচি, মুজিবর রহমান, ইকবাল হোসেন খোকন, ইউসুফ হারুন মজনু, এহতেশামুল হক শাওন, একরামুল হক হেলাল, ইশতিয়াকউদ্দিন লাভলু, শামসুজ্জামান চঞ্চল, মাহবুব হাসান পিয়ারু, নাজমুল হুদা চৌধুরী সাগর, নিয়াজ আহমেদ তুহিন, আবু সাঈদ শেখ, শফিকুল ইসলাম শাহিন, সাইমুন ইসলাম রাজ্জাক, মোহাম্মদ আলী প্রমুখ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ