ঢাকা, মঙ্গলবার 4 September 2018, ২০ ভাদ্র ১৪২৫, ২৩ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বিএনপি নির্বাচনে না এলে আবারও ফাঁকা মাঠে গোল -স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার: সংবিধানের দোহাই দিয়ে সরকার পার পাবে না’ বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, যারা সংবিধান মানে না তারা একথা বলতে পারে। সংবিধানের বাইরে যাওয়া মানে অসাংবিধানিক সরকার আনা। আমরা সংবিধান মানি। সংবিধানের দোহাই সবসময় দিব। সংবিধান পবিত্র দলিল। সংবিধানের আলোকে দেশ পরিচালিত হয়। শুধু তাই নয় বিএনপি নির্বাচনে না এলে আবারও ফাঁকা মাঠে গোল দেয়া হবে।
গতকাল সোমবার দুপুরে বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন (বিএমএ) মিলনায়তনে ‘৩৬ তম বিসিএস (স্বাস্থ্য) ক্যাডারে নবনিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসকগণের যোগদান’ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রণালয়ের সচিব সিরাজুল হক খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন, বিএমএ’র সভাপতি মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব ডা. জামাল উদ্দিন চৌধুরী, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিব) সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সালান, মহাসচিব ডা. আবদুল আজিজ, স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) নাসিমা সুলতানাসহ অনেকে।
সংবিধানের বাইরে নির্বাচন করা যাবে বিএনপির নেতা ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদর এ মন্তব্যের সমালোচনা করে নাসিম বলেন, সংবিধানের বাইরে নির্বাচন করার মানে হচ্ছে দেশে অসাংবিধানিক সরকার আনা। উনি একথা বলতে পারেন। কারণ তিনি মার্শাল ‘ল’র সরকারের মন্ত্রী ছিলেন। একটা দল ছাড়া এমন কোনো দল নাই তিনি করেন নি। উনার মুখেই এগুলো সম্ভব। আমরা এগুলো বলতে পারবো না।
মন্ত্রী বলেন, সংবিধান আছে। সংবিধানের আলোকেই নির্বাচন হবে। এর বাইরে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচিত সরকারের অধীনেই আগামী নির্বাচন হবে। এর কোনো ব্যত্যয় ঘটবে না। জনগণ ভোট দিলে নির্বাচিত হবো, না দিলে হবো না। সংবিধানে যা লেখা আছে তা করতে হবে।
বিএনপির উদ্দেশে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ২০১৪ সালে আপনারা মাঠে খেলেন নাই। আমরা কি করবো। মাঠে না খেললে তো ওয়াক আউট হবেই। এবারও যদি মাঠে না খেলেন তাহলে তো আমরা ফাঁকা মাঠে গোল দিব। খেলার যেমন নিয়ম আছে, নির্বাচনী খেলার নিয়ম আছে।
হঠাৎ করে তা পরিবর্তন করা যায় না। নির্বাচন কমিশন নির্বাচন পরিচালনা করবে। নির্বাচনী খেলায় যে দল জিতবে তারা সরকার পরিচালনা করবে। বিএনপি চায় এমন নিয়ম করতে হবে, যাতে তারা জিততে পারে। ওদের ইচ্ছা মত নিময় পরিবর্তন করা যাবে না।
২১ আগস্টের হামলা বিষয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, কাউকে ফাঁসানোর চিন্তা আমাদের নাই। কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ ও প্রমাণ পাওয়া গেলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।
তিনি বলেন, বিএনপির নেতারা সরাসরি এই হত্যা কন্ডের সাথে জড়িত। তা আজ প্রমাণিত। সরকারের সহযোগিতা ছাড়া এত বড় হত্যাকান্ড চালানো সম্ভব না। আর সম্ভব হলেও তারা পালাতে পারতো না। এতে বুঝা যায় এই হত্যাকান্ডের সাথে বিএনপি জড়িত।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ