ঢাকা, মঙ্গলবার 4 September 2018, ২০ ভাদ্র ১৪২৫, ২৩ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

রংপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৮

রংপুর অফিস : গত রোববার দুপুরে রংপুরে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় গুরুতর আহত রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজীব (১২) নামে আরও এক শিশুর গতকাল সোমবার সকালে মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ঐ দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৮ জনে।
রাজীব গাইবান্ধা জেলার তালুক বেলকা গ্রামের খসরু মাহমুদের পুত্র। রংপুর মেডিকেলে কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডাক্তার অজয় কুমার রায় জানান, রাজীব সোমবার সকালে মারা গেছে। রোবাবর দুর্ঘটনার আহত ৪৩ জনের মধ্যে সোমবার ২০ জন কিছুটা সুস্থ হওয়ায় তাঁরা হাসপাতাল ত্যাগ করে চলে গেছেন । তিনি জানান আহতদের মধ্যে আরো ৪ জনের অবস্থা এখনও আশংকা জনক রয়েছে।  রোববার এ দুর্ঘটনায় ৭ জন নিহত হয়। নিহতরা হলেন-গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার তালুক বর্মন গ্রামের রুবেল হোসেনের স্ত্রী রোকসানা (২০), নীলফামারীর সৈয়দপুরের বোতলাগাড়ী গ্রামের আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী অজিমন (৪৫), পঞ্চগড়ের শাহীন মিয়া (১২), ঠাকুরগাঁও জেলার মৃত ইব্রাহিম মিয়ার পুত্র আব্দুর রহমান (৭০), নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার বাহাগিলী ইউনিয়নের নয়নখাল গ্রামের মৃত শহিদুল ইসলামের স্ত্রী নুরবানু (৪৫), রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার বালারহাট গ্রামের পুলিম সদস্য মামুন মিয়ার স্ত্রী সুমি আক্তার (২২) ও নীলফামারীর কিশোরগঞ্জের ফুলকি বেগম।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, বগুড়া থেকে ছেড়ে আসা পঞ্চগড়গামী বিআরটিসির একটি বাস সিও বাজার এলাকায় পৌঁছালে একটি অটোরিকশাকে সাইড দিতে গিয়ে বিপরীতমুখী দিনাজপুর থেকে ছেড়ে আসা রংপুরগামী অপর একটি বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। দুই বাসের সংঘর্ষে হতাহতের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। কোতোয়ালি থানার এসআই মনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে দুই বাসের চালক ও হেলপারকে আসামী করে রোববার রাতে মামলা দায়ের করেন। দুর্ঘটনার পর পরই পুলিশ বাস দুটি জব্দ করলেও চালক ও চালকের সহযোগীরা পালিয়ে যায়। মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে কোতোয়ালি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) মোক্তরুল আলম জানান, আসামীদের গ্রেফতার করতে পুলিশ অভিযান চালিয়েছে। এছাড়া রংপুরের জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহত ৮ পরিবারের প্রত্যেককে ২০ হাজার করে টাকা প্রদান করা হয়। আহতদের চিকিৎসার দেখভাল করছেন জেলা প্রশাসন। এদিকে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট রশিদুল মান্নাফ কবিরের নেতৃত্বে তিন সদস্যের কমিটি গতকাল সোমবার থেকে দূর্ঘটনার কারন তদন্ত শুরু করেছে। ৩ কার্যদিবসের মধ্যে এই কমিটি তাঁদের তদন্ত রির্পোট দাখিল করবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ