ঢাকা, মঙ্গলবার 4 September 2018, ২০ ভাদ্র ১৪২৫, ২৩ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ভাঙ্গুড়ায় প্রাথমিক শিক্ষা অফিসকক্ষে তালা ঝুলিয়ে পদবঞ্চিতদের বিক্ষোভ

ভাঙ্গুড়া, (পাবনা) সংবাদদাতা: পাবনার ভাঙ্গুড়ায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষকদের প্রধান শিক্ষক পদে চলতি দায়িত্ব প্রদানের বিষয়ে শিক্ষা অফিসারের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ তুলে শিক্ষা অফিসে তালা ঝুলিয়ে অবস্থান কর্মসূচি ও বিক্ষোভ করেছে পদবঞ্চিত সহকারি শিক্ষকরা। গত মঙ্গলবার সকাল ১১ টার দিকে পদবঞ্চিত ১৩ জন শিক্ষক শিক্ষা অফিসারের উপস্থিতিতে অফিস কক্ষে তালা দেন। এ সময় বিক্ষুব্ধ শিক্ষকরা শিক্ষা অফিসার খ. ম. জাহাঙ্গীর হোসেনকে অবরুদ্ধ করে বিক্ষোভ করেন।
বিক্ষোভকারী শিক্ষকদের অভিযোগ, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের মধ্য থেকে ৬৫ ভাগ এবং সরাসরি নিয়োগ থেকে ৩৫ ভাগ শিক্ষকে প্রধান শিক্ষক পদে দেয়ার বিধান রয়েছে। সে বিধান অনুযায়ী উপজেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ২৪ জন শিক্ষকের পদন্নোতির চাহিদা পাঠানোর কথা। কিন্তু শিক্ষা অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা নতুন জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কাছ থেকে বিশেষ সুবিধা নিয়ে পুরাতন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে মাত্র ১১ জন শিক্ষকের পদন্নোতির চাহিদা পাঠায় এবং ঐ চাহিদার প্রেক্ষিতে ১১ জনকে পদন্নোতির আদেশ জারি করে। এখন শিক্ষা কর্মকর্তা অনিয়ম করে ওই ১৩ টি পদে নতুন জাতীয়করণকৃত বিদ্যালয়ের শিক্ষকদেরকে পদন্নোতি দেয়ার চেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ করে পদবঞ্চিত শিক্ষকরা। একপর্যায়ে পরিস্থিতি বেগতিক দেখে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয় এবং ৩ টার দিকে তালা খুলে দিয়ে শিক্ষকরা চলে যান।
এবিষয়ে উপজেলা সহকারী শিক্ষক সমাজের সভাপতি ও আন্দোলনরত শিক্ষক হাসিনুর রহমান জানান, ’সরকারি বিধি লংঘন করে শিক্ষা অফিসার এধরনের কাজ করেছে। পদন্নোতির তালিকা দ্রুত সংশোধনী না করলে শিক্ষক সমাজ ফুঁসে উঠবে।’ অভিযোগের বিষয়ে শিক্ষা কর্মকর্তা খ ম জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ’শিক্ষকরা ভুল বুঝে অফিসে তালা দিয়েছে। শিক্ষকদের পদন্নোতি একটি চলমান প্রক্রিয়া। এটা ভুল হলে সংশোধনী চাহিদা পত্র পাঠিয়ে তা ঠিক করা হবে।’
ইউএনও উম্মুল বানীন দ্যুতি জানান,‘ শিক্ষা কর্মকর্তাকে  দ্রুত সংশোধনী পত্র পাঠাতে বলা হয়েছে এবং শিক্ষকদের ধৈর্য্য ধরতে বলা হয়েছে। আশা করি আর সমস্যা হবে না।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ