ঢাকা, মঙ্গলবার 4 September 2018, ২০ ভাদ্র ১৪২৫, ২৩ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

সাদুল্যাপুরে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

সাদুল্যাপুর (গাইবান্ধা) সংবাদদাতা: গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলার রুমানা বেগম (২৫) নামের এক গৃহবধুর মৃত্যুকে ঘিরে এলাকা নানান গুঞ্জন সৃষ্টি হয়েছে। কেউ বলছে আতœহত্যা, আবার কেউ বলছে শ্বাসরুদ্ধ করে তাকে হত্যা করা হয়েছে।
স্থানীয়রা জানান, উপজেলার ভাতগ্রাম ইউনিয়নের বিরাহীমপুর গ্রামের আঙ্গুর মিয়ার স্ত্রী রুমানা বেগম।
দাম্পত্ত জীবনে এককন্যা সন্তানের জননী।
ইতোপুর্বে তাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এর জের ধরে মঙ্গলবার রুমানা বেগমের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।
এ ঘটনাকে ঘিরে এলাকায় শুরু হয়েছে বহুবিধ জল্পনা-কল্পনা। হত্যা নাকী আত্মহত্যা এ নিয়ে আলোচনার অন্ত নেই।
তবে বেশ কিছু এলাকাবাসী জানান, রুমানা বেগমকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করা হয়েছে।
নিহত রুমানার স্বজনেরা বলেন, তাদের স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে দ্বন্দ্বের জের ধরে মঙ্গলবার রুমানা বেগম তার ঘরে রাখা ব্লাক নাইট (মাথার চুল কালো করা কালী) খেয়ে অসুস্থ হয়।
বিষয়টি জানতে পেরে রুমানাকে দ্রুত সাদুল্যাপুর উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে নেয়ার পথে সে মারা যায়। মঙ্গলবার বিকেলে এ ঘটনার খবর পেয়ে সাদুল্যাপুর থানার ওসি (তদন্ত) এমরানুল হক ওই গৃহবধুর মৃতদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।
ভাতগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এটিএম রেজানুল ইসলাম বাবু গৃহবধু রুমানা বেগমের মৃত্যুর বিষয়ে নিশ্চিত করে বলেন, স্থানীয় অনেকে বলছে তাকে শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করা হয়েছে, আবার রুমানার শ্বশুর বলেছে সে আত্মহত্যা করে মারা গেছে।  
সাদুল্যাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বোরহান উদ্দিন বলেন, হত্যা নাকী আত্মহত্য তা সঠিক বলা যাচ্ছে না।
তবে ব্লাক নাইট (মাথার চুল কালো করা কালী) খেয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করছেন ওসি।
এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোন মামলা কিংবা অভিযোগ দায়ের হয়নি বলে জানান পুলিশ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ