ঢাকা, বুধবার 5 September 2018, ২১ ভাদ্র ১৪২৫, ২৪ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

আশাকরি গণতান্ত্রিক শক্তির ঐক্যের প্রচেষ্টায় বাঁধা দেয়া হবে না -বি. চৌধুরী

স্টাফ রিপোর্টার : সাবেক রাষ্ট্রপতি ও যুক্তফ্রন্টের চেয়ারম্যান অধ্যাপক এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেছেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় নিরপেক্ষ সরকার ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠন করতে হবে। অন্তত দুই মাস আগে সংসদ ভেঙে দিতে হবে। সরকারি আদেশে নিষিদ্ধ টেলিভিশন চ্যানেল ও সংবাদপত্রকে মুক্ত করে সব সংবাদপত্র ও টিভি চ্যানেলকে স্বাধীনভাবে কাজ করতে দেয়া হোক। আমরা গণতান্ত্রিক আবহ সৃষ্টির গ্যারান্টি চাই। আমরা আশা করি সব গণতান্ত্রিক শক্তির মধ্যে বৃহত্তর একতা সৃষ্টির লক্ষ্যে আমাদের প্রচেষ্টাকে প্রতিহত করার চেষ্টা করা হবে না।
গতকাল মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর সাম্প্রতিক বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় তিনি এসব কথা বলেন।
বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী যুক্তফ্রন্ট ও গণফোরামের ঐক্য সম্পর্কে তার বক্তব্যের যে অংশে ইতিবাচক মন্তব্য করেছেন, এর জন্য অভিনন্দন জানাই। আমরা প্রধানমন্ত্রীর এই কথা, কথার কথা না হয়ে কার্যক্ষেত্রে সরকারের গণতান্ত্রিক মনোভাব প্রমাণের প্রচেষ্টা হিসেবে দেখতে চাই।
মিটিং, মিছিল ও প্রচারণায় বাধা না দেওয়া ও রাজবন্দীদের মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানিয়ে যুক্তফ্রন্টের চেয়ারম্যান বলেন, আমরা আশা করি সব গণতান্ত্রিক শক্তির মধ্যে বৃহত্তর ঐক্য সৃষ্টির লক্ষ্যে আমাদের প্রচেষ্টাকে প্রতিহত করার চেষ্টা করা হবে না। সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রয়োজনে নির্বাচনের আগে ৩০ দিন ও নির্বাচনের পর ১০ দিন, মোট ৪০ দিন সামরিক বাহিনীকে শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব দিবে হবে (ওই সময়ের জন্য ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতাসহ)।
তিনি বলেন, গত রোববার সাংবাদিক সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুক্তফ্রন্ট ও গণফোরাম নেতাদের সম্পর্কে যে মন্তব্য করেছেন তা শোভন হয়নি। এসব মন্তব্যের জবাব দেয়ার থাকলেও এই মুহূর্তে তার প্রয়োজন নেই।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ