ঢাকা, বৃহস্পতিবার 6 September 2018, ২২ ভাদ্র ১৪২৫, ২৫ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

কুমিল্লায় ব্যাংক গ্রাহকের ৩ লক্ষাধিক টাকা লুটকারী গ্রেফতার : আদালতে স্বীকারোত্তি

কুমিল্লা অফিস: কুমিল্লার মুরাদনগর থেকে অস্ত্রের মুখে ব্যাংক গ্রাহকের ৩ লক্ষাধিক টাকা লুটের ঘটনায় জড়িত অন্যতম আসামী শরীফ হোসেন বাবুকে গ্রেফতার করেছে কুমিল্লা জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশ। রবিবার বিকালে গ্রেফতারকৃত বাবু কুমিল্লার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রোকেয়া আক্তারের আদালতে টাকা লুটের বিষয়ে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দী দিয়েছে। এর আগে শনিবার বিকালে বাবুকে জেলার দাউদকান্দির গোয়ালমাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত শরীফ হোসেন বাবু চাঁদপুর জেলার মতলব উপজেলার মাইজকান্দি গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা ডিবির এসআই সহিদুল ইসলাম পিপিএম।
ডিবি সূত্রে জানা যায়, গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ডিবির এসআই সহিদুল ইসলাম ও  এসআই নন্দন চন্দ্র সরকার অভিযান চালিয়ে দাউদকান্দির গোয়ালমাড়ি থেকে থেকে ছিনতাইকারী শরীফ হোসেন @ বাবু (৪০) কে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত শরীফ টাকা লুটের ঘটনার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকারসহ তার সহযোগীদের নাম প্রকাশ করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দিয়েছে বলে ডিবি সূত্রে জানা গেছে। 
এর আগে গত ২৮ জানুয়ারি মুরাদনগরের বাবুটিপাড়া গ্রামের আব্দুল্লাহ আল মাছুম ও তাহার বোন মোসাঃ নাজমা বেগম দাউদকান্দির ইলিয়টগঞ্জ এলাকার সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড থেকে ৩ লাখ ৩৭ হাজার টাকা উত্তোলন করে সিএনজি চালিত অটোরিক্সাযোগে মুরাদনগরে গ্রামের বাড়িতে যাচ্ছিলেন। তারা বাড়ির কাছাকাছি পৌছলে একটি কালো রংয়ের মাইক্রোবাসযোগে ছিনতাইকারী শরীফসহ তার ৪/৫ জন সহযোগী অস্ত্রের মুখে আবদুল্লাহ আল মাছুম ও তার বোনকে গাড়িতে উঠিয়ে নেয়। গাড়ির ভেতর তাদের মারধর করে ৩ লাখ ৩৭ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। পরে ছিনতাইকারীরা তাহাদেরকে মাইক্রোবাস যোগে বিভিন্ন স্থানে ঘুরিয়ে বিকালে মুরাদনগরের কোম্পানীগঞ্জ ব্রীজের উপর নামিয়ে দেয়। এ ঘটনায়  ওই রাতে রাতে আব্দুলাহ আল মাছুম বাদী মুরাদনগর থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে মামলাটি জেলা ডিবিতে স্থানান্তর করার পরই ডিবি অভিযান শুরু করে। ডিবির ওসি নাছির উদ্দিন মৃধা জানান,  লুটকৃত টাকা উদ্ধার এবং ঘটনার সাথে জড়িত অপর আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ