ঢাকা, শনিবার 8 September 2018, ২৪ ভাদ্র ১৪২৫, ২৭ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ইদলিবে রাসায়নিক হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে সিরিয়া : যুক্তরাষ্ট্র

৭ সেপ্টেম্বর , বিবিসি, রয়র্টাসের: সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকা ইদলিবে দেশটির সরকার রাসায়নিক অস্ত্র প্রস্তুত করছে বলে ‘প্রচুর আলামত’ থাকার দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। বৃহস্পতিবার (৬ সেপ্টেম্বর) সিরিয়াবিষয়ক নতুন মার্কিন উপদেষ্টা জিম জেফ্রে এ দাবি করেছেন। তার আশঙ্কা, সিরিয়ার বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রণে থাকা সর্বশেষ শক্ত ঘাঁটিটিতেও অভিযান চালানো হতে পারে। 

গত ১৭ আগস্ট জিম জেফ্রেকে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সিরিয়াবিষয়ক বিশেষ উপদেষ্টা ঘোষণা করা হয়। নিয়োগ পাওয়ার পর বৃহস্পতিবার প্রথমবারের মতো সাংবাদিকদের সাক্ষাৎকার দেন তিনি। সেসময় জেফ্রে সতর্ক করে বলেন, ইদলিবে বড় ধরনের অভিযান ও রাসায়নিক হামলা হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। জেফ্রে বলেন, ‘আমি খুব নিশ্চিত এসব সতর্কতা দেওয়ার পেছনে  খুব শক্ত ভিত্তি আছে। যেকোনও আক্রমণই আমাদের জন্য আপত্তিযোগ্য। এ ধরনের হামলাকে বেপরোয়া বিবেচনা করি আমরা। রাসায়নিক অস্ত্র যে তৈরি হচ্ছে সে ব্যাপারে প্রচুর প্রমাণ রয়েছে।’

বিদ্রোহীদের সর্বশেষ শক্ত ঘাঁটি ইদলিবের ভাগ্য কী হবে তা শুক্রবার তেহরানে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া বৈঠকের ওপর নির্ভর করছে। আসাদের মিত্র রাশিয়া ও ইরান এবং বিদ্রোহীদের মিত্র তুরস্কের মধ্যে এ বৈঠক হবে। বৃহস্পতিবার জেফ্রে বলেন, ‘রাশিয়া যদি তুর্কি আলোচকদের সঙ্গে সমঝোতায় আসতে চায় তবে আগামীকাল আমরা কোনও একটা পথ খুঁজে বের করব।’

এ মাসের শেষের দিকে নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে ইরান ইস্যুতে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বৈঠকে ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি এবং সিরিয়া ও ইয়েমেন যুদ্ধে তেরানের হস্তক্ষেপ নিয়ে আলোচনা হবে। জেফ্রে জানান, জাতিসংঘের বৈঠকের ফাঁকে আলোচনায় বসার জন্য যুক্তরাষ্ট্র, জর্ডান, মিসর, সৌদি আরব, জার্মানি ও ব্রিটেনকে আমন্ত্রণ জানিয়েছে ফ্রান্স।

জেফ্রে মনে করেন, শাসক হিসেবে সিরিয়ায় আসাদের কোনও ভবিষ্যত নেই। তবে তাকে উৎখাত করার দায়িত্ব ওয়াশিংটনের ওপর বর্তায় না। তিনি জানান, সিরিয়ায় রাজনৈতিক পট পরিবর্তন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র রাশিয়ার সঙ্গে কাজ করবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ