ঢাকা, শনিবার 8 September 2018, ২৪ ভাদ্র ১৪২৫, ২৭ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

একজন গরীব-অসহায়ের ক্যান্সার আক্রান্তে আর্থিক সহায়তা প্রয়োজন

ভোলাহাট (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) সংবাদদাতা : চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাটে গরীব-অসহায় আনসুর কসাই(৪৫) মৃত বাবা টুলু কসাই গোপিনাথপুর গ্রাম, ভোলাহাট ইউনিয়নে বসবাস। আনসুরের বাবা বসবাসরত জমিটি ছাড়া কোন কিছুই রেখে যায়নি। গরীব ও অসহায় আনসুর প্রতিদিনের ন্যায় পেশাগত কসাইয়ের কাজ করে মা মাকসুরা বেগম, স্ত্রী ২ছেলে, ১ছেলের বৌ ও ১মেয়েকে নিয়ে মোট ৭ সদস্যের মুখের আহাড় দিতে হয় আনসুরকে। কিন্তু সে নিজেই এখন গুরুতর অসুস্থ্য হয়ে টাকার চিন্তায় হতাসায় ভুগছে। তার পরিবারের এতোজন সদস্যদের মুখের আহাড় কে জোগান দিবে, আর কেইবা তার চিকিৎসার টাকা জোগাড় করবে। নানা চিন্তা-টেনশনে অসুখটা দিন দিন বেড়েই চলেছে। 

গত ৩ মাস ধরে মরণব্যাধি লিভার ক্যান্সারে আক্রান্ত হলে আনসুরের সংসারের আকাশে নেমে আসে কালবৈশাখী ঝড়। তার পরিবারের ৭জন সদস্যদের মধ্যে আয়ের উৎস্য একমাত্র আনসুর কসাই। সে নিজেই আজ ৩মাস ধরে বিছানায় টাকার অভাবের তাড়নায় সু-চিকিৎসা করতে না পাড়ায় কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে মৃত্যুর প্রহড় গুনছে। আনসুরের বড় ছেলে রেপন জানায়, আমার বাবাকে নিয়ে গত ৪ সেপ্টেম্বর’১৮ তারিখে রাজশাহী মেট্রোপলিটন হাসপাতালে ভর্তি করা হলে টাকার অভাবে বাবার অপারেশন করা দুঃসাধ্য হয়ে পড়েছে। সে আরো জানায় দেশের সকল মানুষের কাছে বিশেষ করে বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার আকুল মিনতি আমার বাবার এ দুর্দিনে আপনি বাবাকে বাঁচতে দিন, আমার বাবাকে সুচিকিৎসার জন্য একটু দয়া করুন বলে কেঁদে ফেললেন রেপন।

রাজশাহী মেট্রোপলিটন হাসপাতালে ভর্তি অবস্থায় আনসুর কসাইয়ের সাথে কথা বললে তিনি বাকশক্তি নেই এমন অবস্থায় কোনমতে এ প্রতিবেদককে কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ভাইরে হামি বাঁচতে চাই, হামাকে তোরা বাঁচা, শেখ হাসিনা আপার কাছে হামি আকুল কাকুতি-মিনতি করে কহছি, হামার যদি কিছু হয়ে যায়, তাহলে আপা হামার ছেলেমেয়ে, বউ-বেটি, আমার গর্ভধারিনী মাও মরে যাবে। কারণ হামি একমাত্র হামার পরিবারের আয় কইরা থাকি। তাই হামাকে একটু দয়া করুন আপা বলেই অজ্ঞান হয়ে পড়ে।

কথায় বলে মানুষ মানষের জন্য। দশের লাঠি একের বোঝা। তাই আসুন না আমরা সকলেই আবালবৃদ্ধবণিতা তার আর্থিক সহায়তার হাতটি সুপ্রসারিত করি। আনসুরকে আর্থিক সহায়তা করার জন্য বিকাশ নং-০১৭০০৫৫৭৪৮৮(রেপন) অথবা ০১৭৭০৬৫২৬৪১(লিটন) এ নম্বরে যোগাযোগ করার জন্য বিশেষ ভাবে অনুরোধ রইলো।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ