ঢাকা, শনিবার 8 September 2018, ২৪ ভাদ্র ১৪২৫, ২৭ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিপ্রস্তুতি : সাধারণ জ্ঞান

সাধারণ জ্ঞান পড়ার সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো পড়ার কিছু সময় পরেই ভুলে যাবেন। এ সমস্যা দুর করতে কিছু কৌশল অবলম্বন করতে পারেন যদিও বারবার পড়ার কোনো বিকল্প নেই।
১. গুরুত্বপূর্ণ সাল/তারিখ ছাড়া অপ্রাসঙ্গিক সাল/তারিখ না পড়ার চেষ্টা করবেন। যেমন: পলাশীযুদ্ধের সাল গুরুত্বপূর্ণ কিন্তু নবাব সিরাজউদ্দৌলার জন্মসাল গুরুত্বপূর্ণ নয়।
২. সংস্থা/সংগঠনের প্রতিষ্ঠা, সদর দপ্তর, সদস্য এবং কি উদ্দেশ্যে প্রতিষ্ঠিত এ তথ্যগুলো পড়লেই চলবে।
৩. যা পড়বেন তা অন্যের সাথে ংযধৎব করবেন বা নিজে নিজেই বলার চেষ্টা করবেন।
৪. প্রতিদিন যতগুলো ঞড়ঢ়রপ পড়বেন পরের দিন তা সম্পর্কে না দেখে লেখার অভ্যাস করুন।
৫. ব্যক্তি সম্পর্কে পড়ার সময় তার জন্ম-মৃত্যু সালের দিকে গুরুত্ব না দিয়ে তার কর্ম সম্পর্কে তথ্য পড়ুন।
প্রিয় পরীক্ষার্থী বন্ধুরা,
যেকোন প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার জন্য সাধারণ জ্ঞান জানার বিকল্প নাই। কারণ সকল পরীক্ষাতেই এই অংশের জন্য ভালো একটা নম্বর বরাদ্দ থাকে। তাছাড়া সাধারণ জ্ঞানে শক্ত দখল থাকলে আপনি সাধারণ জ্ঞান অংশ ছাড়াও বাংলা রচনা, ইংরেজি রচনা ইত্যাদিতে অনেক ডাটা যুক্ত করতে পারবেন। বিভিন্ন পরীক্ষায় সংক্ষিপ্ত প্রশ্নের উত্তর দিতে পারবেন। এছাড়া ভর্তি পরীক্ষায় মানবিক বিভাগের ইউনিট ও বিভাগ পরিবর্তনকারী ইউনিটের জন্য সাধারন জ্ঞান একটি অত্যাবশকীয় বিষয়। অনান্য বিষয়ের মতো এ বিষয়ও  সমান গুরুত্বপূর্ণ।
তাই সাধারণ জ্ঞানের প্রস্তুতিই আজকের লেখার বিষয়।
সাধারণ জ্ঞানের প্রস্তুতির জন্য বাজারে প্রচলিত যেকোনো ভালো মানের একটি বই অনুসরণ করুন। সে বইয়ের প্রতিটি টপিকের শেষে দেয়া আছে বিগত সালে  ঐ টপিক  থেকে আসা প্রশ্নগুলো। যেসব টপিক থেকে বিগত সালে বেশি প্রশ্ন এসেছে সেসব বিষয়ে অধিক গুরুত্ব দিন। ভারতীয় উপমহাদেশের ইতিহাস,ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ, সংবিধান, সরকার ব্যবস্থা, বাজেট, বিশিষ্ট ব্যক্তি,গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান/ সংস্থা, বিভিন্ন দেশের মুদ্রা, রাজধানী, বিভিন্ন যুদ্ধ, চুক্তি, গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা, প্রণালী, চ্যানেল, বিভিন্ন স্থানের প্রাচীন নাম, গুরুত্বপূর্ণ দিবস, পূর্ণরূপ,বিভিন্ন পুরস্কার/অর্জন , খেলাধুলা প্রভৃতি থেকে প্রশ্ন এসে থাকে।
সাধারণ জ্ঞানের প্রস্তুতির ক্ষেত্রে সবচেয়ে কঠিন সাল মনে রাখা এক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি সাল মনে রাখুন অন্যগুলো মনে রাখতে কষ্ট হলে দুশ্চিন্তার কিছু নেই। পরীক্ষায় সাল থেকে ২/১ টা প্রশ্ন এসে থাকে। অনেক সময় একটা প্রশ্নও আসেনা। অন্য আর যেসব বিষয় কঠিন মনে হয় সেক্ষেত্রে  ছন্দ বানিয়ে পড়তে পারেন। এতে সহজে সব মনে রাখতে পারবেন। অন্যদিকে সাম্প্রতিক বিভিন্ন বিষয় থেকে প্রশ্নও এসে থাকে।
এ বিষয়ে ভালো করার জন্য নিয়মিত জাতীয় দৈনিক পত্রিকা পড়া ও বিবিসি শোনা যেতে পারে। মাঝে মাঝে পত্রিকায় আন্তজার্তিক আর বাণিজ্য পাতায় চোখ রাখতে হবে।  দৈনিক পত্রিকার পাশাপাশি কারেন্ট অ্যাফেয়ার্স,মাসিক আর্টিকেলস্ এন্ড কলামস্ এর মতো মাসিক পত্রিকাগুলো পড়তে পারেন।
আর ভর্তি পরীক্ষার ১০-১৫ দিন আগে ট্যাবলয়েড জাতীয় সাম্প্রতিকের অল্প কয়েকটা পৃষ্টার কিছু বই পাওয়া যায়; সেগুলো সংগ্রহ করেও পড়তে পারেন।
কঠিন টপিক অথচ গুরুত্বপূর্ণ এসব বিষয়ে বেশিবেশি জোর দিন। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে আসা বিগত সালের প্রশ্নও বিসিএসসহ বিভিন্ন চাকরির নিয়োগ পরীক্ষায় আসা প্রশ্নগুলো বেশি বেশি চর্চা করতে পারেন। আবার লক্ষ্য রাখবেন এসব পড়তে গিয়ে কিছু প্রশ্ন পাবেন যা তখনকার সময়ে সাম্প্রতিক ও গুরুত্বপূর্ণ ছিল।
কিন্তু সময়ের সাথে সাথে তার আবেদন  হারিয়ে গেছে সেসব প্রশ্নগুলো বাদ দিয়ে পড়বেন। সাধারণ জ্ঞানে ভালো করতে হলে ম্যাপ সম্পর্কে ভালো ধারণা রাখার জুড়ি নেই। তাই পড়ার সময় ম্যাপের সাথে মিলিয়ে পড়তে পারেন। প্রতিদিন একবার হলেও একটি তথ্যবহুল ম্যাপ ভালো করে পর্যবেক্ষণ করুন।
-এম এম মুজাহিদ উদ্দীন

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ