ঢাকা, সোমবার 19 November 2018, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

‘ইরান ও রাশিয়া যৌথভাবে আমেরিকাকে প্রতিহত করতে পারে’

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে এক বৈঠকে বলেছেন, সিরিয়া সংকটকে কেন্দ্র করে ইরান ও রাশিয়ার মধ্যকার সহযোগিতা দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক শক্তিশালী করার ক্ষেত্রে অনুকরণীয় আদর্শে পরিণত হয়েছে। বিশ্বের অন্যান্য সংকট নিরসনের ক্ষেত্রেও এ সহযোগিতা অব্যাহত থাকতে পারে বলে তিনি অভিমত প্রকাশ করেছেন।

শুক্রবার তেহরানে ইরান, তুরস্ক ও রাশিয়ার শীর্ষ নেতাদের সিরিয়া বিষয়ক বৈঠক শেষে রুশ প্রেসিডেন্ট সর্বোচ্চ নেতার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যান। এ সময় আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী আরো বলেন, ইরান ও রাশিয়া যৌথভাবে যে গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো করতে পারে তার অন্যতম হচ্ছে আমেরিকার বলদর্পিতা প্রতিহত করা। কারণ, ওয়াশিংটন বিশ্ব মানবতার জন্য একটি বিপদ এবং তাকে প্রতিহত করা সম্ভব।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বলেন, মার্কিনীরা সিরিয়ায় সত্যিকার অর্থে পরাজিত হয়েছে এবং তারা তাদের লক্ষ্য অর্জন করতে পারেনি। ইরান, তুরস্ক ও রাশিয়ার বিরুদ্ধে মার্কিন নিষেধাজ্ঞাকে এই তিন দেশের মধ্যে সহযোগিতা শক্তিশালী করার একটি গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ বলে উল্লেখ করেন।

বৈঠকে পাশ্চাত্যের সঙ্গে ইরানের স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতা প্রসঙ্গেও কথা বলেন সর্বোচ্চ নেতা। তিনি বলেন, ইরান পরমাণু সমঝোতায় দেয়া প্রতিটি প্রতিশ্রুতি পূরণ করলেও ইউরোপীয় দেশগুলো তাদের ওয়াদা রক্ষা করেনি। এ বিষয়টি গ্রহণযোগ্য নয় বলে তিনি উল্লেখ করেন।

আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেন, আমেরিকা গত ৪০ বছর ধরে ইরানের ইসলামি শাসনব্যবস্থা উৎখাতের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে। কিন্তু এই ৪০ বছরে ইরান অন্তত ৪০ গুণ শক্তিশালী হয়েছে। আমেরিকাকে যে প্রতিহত করা সম্ভব ইরানের মার্কিন বিরোধী এই প্রতিরোধ সেকথা প্রমাণ করেছে।

সাক্ষাতে ইরানের পরমাণু সমঝোতায় স্বাক্ষরকারী কোনো কোনো দেশের প্রতিশ্রুতি লঙ্ঘনে দুঃখ প্রকাশ করেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তিনি বলেন, মার্কিন সরকার অনুপযুক্ত পদক্ষেপ নিয়ে পরিস্থিতিকে জটিল করে তুলেছে। পুতিন বলেন, ইউরোপীয়রা মুখে পরমাণু সমঝোতা রক্ষার কথা বললেও তারা আমেরিকার ওপর নির্ভরশীল বলে ওয়াশিংটনের কথা মেনে চলতে বাধ্য। 

-পার্স টুডে

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ