ঢাকা, রোববার 9 September 2018, ২৫ ভাদ্র ১৪২৫, ২৮ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের নোয়াবাজার যাত্রীবাহী মদিনা ও যমুনা বাস থামানোর দাবি

চৌদ্দগ্রাম (কুমিল্লা) সংবাদদাতা: ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাড়কের ফেনী-কুমিল্লা রুটে যাত্রীবাহী মদিনা ও যমুনা পরিবহনের বাস চৌদ্দগ্রামের নোয়াবাজারে থামানোর জন্য শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ করেছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র ও এলাকাবাসী। গত মঙ্গলবার ও সোমবার সকালে দুই ঘন্টা করে তারা বিক্ষোভ করে মদিনা ও যমুনা বাস আটকে রাখে। বেশ কয়েকদিন ধরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ত্রি হুইলার চলাচল বন্ধ করায় নোয়াবাজার এলাকার ছাত্র-ছাত্রীরা কুমিল্লা, মিয়াবাজার, ছুপুয়া, ধর্মপুর এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেতে চরম ভোগান্তি ভোগ করায় সাধারন মানুষসহ তারা আন্দোলনে নামে।
গতকাল মঙ্গলবার সকালে সরেজমিন নোয়াবাজারে গিয়ে দেখা গেছে, সকাল সাড়ে নয়টা থেকে বেলা সাড়ে এগারটা পর্যন্ত বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র ও এলাকার সাধারণ মানুষ একত্রিত হয়ে বেশ কয়েকটি মদিনা ও যমুনা বাস আটক করে। তারা স্লোগান দেয়-‘আমাদের দাবি মানতে হবে, মদিনা ও যমুনা বাস থামতে হবে’। তখন মিয়াবাজার হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মন্জুরুল হকের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে টহল দেয়। খবর পেয়ে কালিকাপুর ইউপি চেয়ারম্যান ভিপি মাহবুব হোসেন মজুমদার ও ইউপি মেম্বার মোশারফ হোসেন লিটন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। 
এ ব্যাপারে মিয়াবাজার হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মন্জুরুল হক বলেন, এটা ছাত্রদের আন্দোলন না। নোয়াবাজার এলাকার মানুষ মদিনা ও যমুনা বাস থামানোর জন্য রাস্তায় শান্তিপূর্ণভাবে কিছুক্ষণ অবস্থান করেছিল। বাস মালিকপক্ষের সাথে আলোচনার আশ্বাসে তারা অবস্থান ত্যাগ করে। সড়কে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ