ঢাকা, সোমবার 10 September 2018, ২৬ ভাদ্র ১৪২৫, ২৯ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

শাহজাদপুরে পাটের বাম্পার ফলন কৃষকরা খুশি

শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা : আবহাওয়া অনুকূল আর সার সঙ্কট না থাকার ফলে শাহজাদপুর উপজেলায় এ বছর সোনালী আঁশ পাটের বাম্পার ফলন হয়েছে। পাটের বাজার দাম ভাল হওয়ায় হাসি ফুটেছে কৃষকদের। এ বছর শাহজাদপুর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে পাটের চাষাবাদ ভাল হয়েছে বলে জানা গেছে। অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর যথাসময়ে খড়া,ভালো বৃষ্টিপাত,ভালবীজের সহজলোভ্যতা এবং সারের সঙ্কট না থাকার কারণে লক্ষমাত্রা পূরণ সম্ভব হয়েছে। এরই মধ্যে বিভিন্ন গ্রামে পাটের আঁশ ছাড়ানোর জন্য কৃষকরা ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে। গত বছর গুলোর তুলনায় এ বছর দিগুন ফলন হয়েছে। এছাড়াও বর্ষা মৌসুমে ভাল বৃষ্টিপাত সর্বশেষ বন্যার পানি শাহজাদপুরের বিভিন্ন খাল-বিল ও নদীতে প্রবেশ করায় পাট জাগে বাড়তি সুবিধা পাওয়া গেছে। চাষিরা জানান,তারা রোগবালাই মুক্ত পাটের আঁশ ছাড়াচ্ছেন। তাই চাষীরা পাটের নায্য মূল্য আরও বৃদ্ধির দাবী জানিয়েছেন। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, পাটজাত দ্রব্যের ব্যবহার কমে যাওয়ায় শাহজাদপুর উপজেলায় পাটের চাষাবাদ কমে গিয়েছিলো। তবে পাটের বাজার মূল্য সহনীয় পর্যায় হওয়ায় এ উপজেলায় ধীরে ধীরে পাটের চাষাবাদ বাড়তে শুরু করেছে। উপজেলার কায়েমপুর, গাড়াদহ, রুপবাটি, পোতাজিয়া পোরজনা, নরিনা, হাবিবুল্লাহনগর ইউনিয়নে সবচেয়ে বেশি পাটের চাষাবাদ করা হয়ে থাকে। যুমনা তীরবর্তী গালা ও যুমনা চরের সোনাতনী ইউনিয়নেও পাটের বাম্পার ফলন লক্ষ করা গেছে। শাহজাদপুর পৌর এলাকার কিছু কিছু জায়গায় পাটের চাষাবাদ করতে দেখা গেছে কৃষকদের। এ বছর পাটের বাজার দর উপজেলার তালগাছি হাটে প্রতিমন ১৮০০ থেকে ২ ০০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ বছর পাটের বাজার দর ভাল হওয়ায় আগামী বছরে কৃষকরা আরও বেশি পাট চাষে ঝুঁকবেন বলে আশা করছেন উপজেলা কৃষি অফিস।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ