ঢাকা, সোমবার 10 September 2018, ২৬ ভাদ্র ১৪২৫, ২৯ জিলহজ্ব ১৪৩৯ হিজরী
Online Edition

জরুরি মেরামত ও কোর্টেশনের মাধ্যমে প্রায় কোটি টাকা লুটপাট

আসাদুল হক পলাশ (নরসিংদী) থেকে: নরসিংদী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যলয়ের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী দীন ইসলাম এর বিরুদ্ধে ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরের শেষ অর্ধেক সময়ে জরুরি মেরামত কাজের নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের নামে প্রায় ৭৮ লাখ এবং কোর্টেশনের মাধ্যমে ঐ ঠিকাদার তার স্বজনদের প্রতিষ্ঠানের নামে ৪৭ লাখ টাকা কাজ না করে লুটপাটের অভিযোগ দায়ের হয়েছে। অতি সম্প্রতি পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক বরাবরে এ অভিযোগ দাখিল করা হয়।
অভিযোগ থেকে জানা গেছে, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নরসিংদীর উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলীর দীন মোহাম্মদ গত ছয় মাসে বিভিন্ন প্রকল্প দেখিয়ে তার পছন্দের  ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স আবরার এন্টারপ্রাইজ, পশ্চিম ব্রাহ্মন্দী, নরসিংদী এর নামে ডাইরেক্ট প্রকিয়োরম্যান মেথড পদ্ধতিতে নয় টি প্রকল্প দেখিয়ে অধিকাংশ প্রকল্পের ৮০% কাজ না করে বিল  উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেছে। প্রকল্প গুলোর কার্যাদেশের মেমো নম্বর ঞ-২/১৪৮১ উধঃবফ.০৩/০৮/২০১৭ থেকে ঞ-২/১৫৯৩/২ উধঃবফ. ০৩/০৯/২০১৭ পর্যন্ত মোট নয়টি প্রকল্পের কার্যাদেশে ব্যয় ৭৭ লাখ ৮২ হাজার তিনশ টাকা ৮০ পয়সা। ছাড়া জুন ফাইনালের পূর্বেই কোটেশনের মাধ্যমে ঐ ঠিকাদার ও তার স্বজন ও পছন্দের কয়েকজন ঠিকাদারদের দিয়ে ১০ টি কার্যাদেশে ১৯ লাখ টাকা কোন কাজ না করেই 
উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী দীন মোহাম্মদ আত্মসাৎ করেছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনৈক ঠিকাদার এর প্রতিবেদক কে বলেন আমাদের বিল উঠেছে। কিন্তু টাকা খেয়েছেন এস ডি ই দীন মোহাম্মদ। ভ্যাট, আইটি দিয়ে আমরা মাত্র ১৫ হাজার টাকা পেয়ে থাকি। মাত্র একদিনে ১৫ হাজার টাকাই বা কম কি ? উল্লেখ্য উক্ত এস ডি ই দীন মোহাম্মদ কে নরসিংদী কার্যালয় থেকে ইতোপূর্বে দুই বার বদলী করা হয়েছিল। কিন্তু তিনি কোন না কোন ভাবে তদবির করে এখানেই থেকে গেছেন। তিনি নরসিংদীর একটি স্থানীয় দৈনিক পত্রিকার সম্পাদক কে এ বিষয়ে কথা বলার কারণে ক্রস ফায়ারের হুমকি পর্যন্ত দিয়েছেন। পানি উন্নয়ন বোর্ডের অভিযুক্ত এস ডি ই দীন মোহাম্মদ এর সাথে কথা বলতে চাইলে তিনি এ প্রতিবেদক কে সময় দিতে সম্মত হননি। তিনি এসব বিষয়ে কথা বলতে নারাজ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ