ঢাকা, বুধবার 12 September 2018, ২৮ ভাদ্র ১৪২৫, ১ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

যুক্তরাষ্ট্রে পিএলওর কার্যালয় বন্ধ করে দেবে ট্রাম্প প্রশাসন

১১ সেপ্টেম্বর, আল জাজিরা, এএফপি : যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে প্যালেস্টাইন লিবারেশন অর্গানাইজেশনের (পিএলও) একটি কূটনৈতিক দপ্তর বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন। ফিলিস্তিনী সরকার ইসরায়েলের সঙ্গে মার্কিন নেতৃত্বাধীন একটি সমঝোতা আলোচনায় অংশগ্রহণে অস্বীকৃতি জানানোর পর এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। গতকাল এক ফিলিস্তিনী কর্মকর্তা যুক্তরাষ্ট্রের পদক্ষেপকে ‘বিপজ্জনক ধরনের উত্তেজনা বৃদ্ধি’ বলে নিন্দা জানিয়ে এ তথ্য দিয়েছেন।

এক বিবৃতিতে পিএলওর মহাসচিব সায়েব এরাকাত বলেন, এক মার্কিন কর্মকর্তার মাধ্যমে আমরা যুক্তরাষ্ট্রে ফিলিস্তিনী মিশন বন্ধের সিদ্ধান্ত সম্পর্কে জানতে পেরেছি। এটি মূলত সামগ্রিকভাবে ফিলিস্তিনী জনগণকে শাস্তি দেয়ার জন্য ট্রাম্প প্রশাসনের আরেকটি নীতি। এর আগে যুক্তরাষ্ট্র আমাদের দুর্ভোগ বাড়াতে স্বাস্থ্য ও শিক্ষাসহ মানবিক সেবার আর্থিক সহায়তা বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে।

মার্কিন কর্মকর্তারা মধ্যপ্রাচ্যের শান্তির জন্য একটি পরিকল্পনা হাজির করেছেন। এ পরিকল্পনাকে ‘চূড়ান্ত চুক্তি’ বলে উল্লেখ করেছেন ট্রাম্প। মূলত ফিলিস্তিনী নেতৃত্বকে এ পরিকল্পনায় অংশগ্রহণের জন্য চাপ দিতে কূটনৈতিক মিশন বন্ধের মতো পদক্ষেপ নিচ্ছেন ট্রাম্প।

 বোল্টন ওয়াশিংটন ডিসিতে একটি রক্ষণশীল দল ফেডারেলিস্ট সোসাইটির উদ্দেশে এমন বক্তব্য রাখতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। বোল্টনের খসড়া বক্তব্যে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র সর্বদা তার বন্ধু ও মিত্র ইসরায়েলের পাশে থাকবে। ফিলিস্তিনীরা যখন ইসরায়েলের সঙ্গে সরাসরি এবং অর্থপূর্ণ আলোচনা শুরু করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে, তখন ট্রাম্প প্রশাসন তাদের কার্যালয় খোলা রাখার অনুমোদন দিতে পারে না। ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল ও রয়টার্স বোল্টনের খসড়া বক্তব্যটি হাতে পেয়েছে।

উল্লেখ্য, দীর্ঘদিনের মার্কিন আইন অনুসারে, ওয়াশিংটনে মিশন খোলা রাখার জন্য পিএলওকে প্রতি ছয় মাস পর অনুমোদন নিতে হয়। নভেম্বরে পিএলওর ওয়াশিংটন দপ্তর বন্ধ করে দেয়ার হুমকি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

ফিলিস্তিনি নেতারা আইসিসিতে ইসরায়েলি কর্মকর্তাদের বিচার দাবি করে এরই মধ্যে চুক্তি ভঙ্গ করেছেন বলে মার্কিন কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ