ঢাকা, বুধবার 12 September 2018, ২৮ ভাদ্র ১৪২৫, ১ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

হোমো ইরেকটাস প্রজাতির অবলুপ্তির কারণ আলসেমি

নৃতত্ত্ব নিয়ে প্রতিদিনই নিত্যনতুন গবেষণা চলছে এবং তাতে মাঝে মধ্যেই নানাবিধ চমকপ্রদ তথ্যও উঠে আসে। সম্প্রতি তেমনি একটি তথ্য উঠে এসেছে নতুন একটি গবেষণা থেকে। আধুনিক মানুষের পূর্বপুরুষ হোমো ইরেকটাসদের বিলুপ্ত হওয়া নিয়ে অনেকদিন ধরেই গবেষণা চলছে। সম্প্রতি নৃতাত্ত্বিকরা জানিয়েছেন এর পিছনে প্রধান কারণ ছিল অলসতা। সেই সময়ে ইদম মানুষ হাতিয়ার তৈরি করে বন থেকে জীবনধারণের প্রয়োজনীয় জিনিস সংগ্রহ করত। সেই হাতিয়ার তৈরিতেই একসময়ে তাদের চূড়ান্ত বিরূপতা জন্মায়। ফলে ক্রমশ কমে আসতে থাকে জীবনের গতি। আনুমানিক হিসাবে পৃথিবীতে হোমা ইরেকটাস প্রজাতির সূচনা হয়েছিল প্রায় ২০ লক্ষ বছর আগে। কিন্তু কয়েক প্রজন্ম পর থেকেই তাদের পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে চলার ব্যাপারে একটা অনীহা দেখা দেয়। গবেষকরা আরও প্রমাণ পেয়েছেন এদের তৈরি করা হাতিয়ারগুলো অত্যন্ত নিম্নমানের ছিল, যা দিয়ে তৎকালীন প্রতিকূল পরিস্থিতিতে জীবনযাপন করা সবক্ষেত্রে সম্ভবপর ছিল না। সাল ২০১৪, অস্ট্রেলিয়ার ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির প্রত্নতত্ত্ববিদরা আরব উপদ্বীপ থেকে পাওয়া কিছু নব্যপ্রস্তর যুগের হাতিয়ার নিয়ে রীতিমতো জোরদার গবেষণা করতে শুরু করে দেন। রিয়াদ থেকে ২০০০ কিলোমিটার পশ্চিমে সাফফাকাহতে হোামো ইরেকটাসদের কিছু হাতিয়ার পরীক্ষা করতে গিয়েই এদের অবলুপ্তির বেশ কয়েকটি কারণ উঠে আসে, সেখান থেকে অলসতাকেই মূল কারণ হিসাব চিহ্নিত করা হয়েছে। প্রথম থেকেই হোমো ইরেকটাসরা সহজে পানি ও পাথর সংগ্রহ করা যায় এমন এলাকা বেছে বেছে সেখানে বাস করত। হাতিয়ার তৈরির জন্য এরা খুব একটা উচ্চমানের পাথর ব্যবহার করত না। জানিয়ছেন গবেষক দলের প্রধান সেরি শিপটন। কিন্তু এরা যেখানে থাকত তার কিছুটা দূরেই পাহাড়ে উন্নতমানের পাথর পাওয়া যেত, স্রেফ পাহাড়ে চড়ার আলসেমিতে এরা কখনওই সেদিকে যেত না, হাতের কাছে যা পাওয়া যেত তাই দিয়েই কাজ সারত। অন্যদিকে সেই সময়ের আরও এক প্রজাতি নিয়ানডারথালরা কিন্তু পাহাড়ে চড়ে উন্নতমানের পাথর নিয়ে আসত।
বিভিন্ন রকম পরীক্ষা করে গবেষকরা সিদ্ধান্ত এসেছেন যে হোমো ইরেকটোরাসরা খুব রক্ষণশীল ছিল। কীভাবে বোঝা গেল? কেননা তাদের অস্তিত্ব যতদিনই এই পৃথিবীর বুকে ছিল, ততদিনে নানারকমভাবে আবহাওয়া বদলেছে, কিন্তু তারা সেই বদলে যাওয়া পারিপার্শ্বর সঙ্গে নিজেদের মানিয়ে নিয়ে হাতিয়ারগুলোকে কখনও বদলায়নি। সেই পুরনো হাতিয়ারগুলিই ব্যবহার করে এসেছে। সম্প্রতি শুকিয়ে যাওয় একটি নদীর গর্ভ থেকে সেই আমলের বেশ কিছু হাতিয়ারের সন্ধান নৃতাত্ত্বিকরা পেয়েছেন। আফ্রিকা থেকে ইউরেশিয়া, জর্জিয়া, চীন সর্বত্র এরা ছড়িয়ে পড়েছিল। খুব সম্ভবত ১ লক্ষ ৪০ হাজার বছর আগে পৃথিবীর বুক থেকে এদের অবলুপ্তি ঘটে গিয়েছিল। (ইন্টারনেট থেকে)

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ