ঢাকা, বুধবার 12 September 2018, ২৮ ভাদ্র ১৪২৫, ১ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

নিজস্ব উদ্ভাবনী শক্তির উন্মেষ ঘটিয়ে কল্যাণমুখী শিক্ষায় ব্রতী হওয়ার আহ্বান

চট্টগ্রাম ব্যুরো : stitutional Quality Assurance Cell (IQAC), চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়-এর উদ্যোগে ৪ সেপ্টেম্বর বেলা ১১.৩০ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য দপ্তরের সভা কক্ষে ‘SHARING EXPERIENCES AND INVITING SUGGESTIONS FOR ACADEMIC EXCELLENCY OF CU’ শীর্ষক একটি কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ কর্মশালা উদ্বোধন করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের  উপাচার্য প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী।
উপাচার্য শিক্ষক-গবেষকদের পেশাগত উৎকর্ষতা বৃদ্ধিতে দায়িত্ব সচেতনতা বৃদ্ধি, আধুনিক জ্ঞান-বিজ্ঞান চর্চা, অভিজ্ঞতা বিনিময়, জ্ঞান আহরণ-বিতরণে বিবেকপ্রসূত হওয়ার ওপর বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করেন। তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা-গবেষণা ও প্রশাসনিক উন্নয়নে বিগত তিনবছর আইকিউএসি’র নিরবচ্ছিন্ন ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করেন।  উপাচার্য  বলেন, সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা-গবেষণা ও প্রশাসনিক কার্যক্রমসহ বিভিন্ন সূচকে অভূতপূর্ব সাফল্যের স্বীকৃতিস্বরূপ এ বিশ্ববিদ্যালয় এখন দেশের ১ নম্বর বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং-এ ৩০৫০। এ অর্জনকে অধিকতর সমৃদ্ধ করতে আমাদের সক্ষমতা, সুযোগ, ঝুঁকি ও সম্ভাবনাকে সার্বিক অর্থে সমন্বয় করে ‘মিশন’ ও ‘ভিশন’ বাস্তবায়নে দায়িত্বশীল হতে হবে। তিনি আরও বলেন, আত্মজিজ্ঞাসা, আত্মউন্নয়ন ও নিজস্ব উদ্ভাবনী শক্তির উন্মেষ ঘটিয়ে কল্যাণমুখী শিক্ষায় ব্রতী হতে হবে।
এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন চ.বি. উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতার। আইকিউএসি’র পরিচালক প্রফেসর ড. জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে এবং অতিরিক্ত পরিচালক জনাব সুকান্ত ভট্টাচার্যের পরিচালনায় এ কর্মশালায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪২টি বিভাগ/ ইনস্টিটিউটের ১২৬ জন শিক্ষক-গবেষক অংশগ্রহণ করেন। শুরুতেই আইকিউএসি’র পরিচালক আইকিউএসি’র সার্বিক কার্যক্রম তুলে ধরে একটি পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপন করেন। মুক্ত আলোচনা পর্বে অংশগ্রহণকারী শিক্ষক-গবেষকবৃন্দ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা, উচ্চ শিক্ষা ও গবেষণা উন্নয়নে তাঁদের অভিজ্ঞতা, সুচিন্তিত মতামত ও পরামর্শ তুলে ধরেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ