ঢাকা, বৃহস্পতিবার 13 September 2018, ২৯ ভাদ্র ১৪২৫, ২ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

সোনারগাঁয়ে একই পরিবারের পাঁচজন গোদ রোগে আক্রান্ত ॥ চিকিৎসার অভাবে মৃত্যুযন্ত্রণায় ছটফট করছে

রুহুল আমিন, সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) : নারায়নগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার সনমান্দি ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের পাঁচানি গ্রামে একই পরিবারের পাঁচজন গোদ রোগে আক্রান্ত হয়েছে। অর্থের অভাবে সুচিকিৎসা নিতে পারছে না অসহায় পরিবারটি। নিজেদের যতটুকু জমিজমা ছিল চিকিৎসা করাতে গিয়ে তা সব বিক্রি করে নি:স্ব হয়ে গেছে ওই পরিবার। সমাজের বিত্তবান ব্যক্তি থেকে শুরু করে চেয়ারম্যান, সাংসদ, মেম্বার পর্যন্ত সকলের ধারে ধারে ঘুরে কোনো সাহায্য না পেয়ে অবশেষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে মা সম্মোধন করে সুচিকিৎসার আবেদন জানিয়েছেন পরিবারের অসুস্থ্য লোকজন।

 সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, পাঁচানি গ্রামের আঃ রশিদ মিয়া (৬৫) তার তিন পুত্র জজ মিয়া(৪৫) জহিরুল ইসলাম(৪০) তাজুল ইসলাম (১৫)। তাজুল ইসলাম নবম শ্রেণির ছাত্র এবং নজরুল ইসলাম(১৪) সপ্তম শ্রেণির ছাত্র। তারা পরিবারের পাঁচজন সদস্য গোদ রোগে আক্রান্ত। প্রতিজনের দুটি পা ফোলা। এতে কেউ বলছে গোদ রোগ, ফিস্টুলা কিংবা পাইরিয়া। ডাক্তারের নিকট চিকিৎসা করতে নিয়ে যাওয়ার পরও সুনিদৃষ্টভাবে কেউ বলতে পারছে না এটি কোন রোগ। আর এ রোগ থেকে পরিত্রাণ পেতে অসহায় পরিবার একের পর এক চিকিৎসা নিয়ে নি:শ্ব অসহায় ভাবে দিন যাপন করছে। কিন্তুু কেউ সাহায্য সহযোগিতা পর্যন্ত করছে না। এ সম্পর্কে জানতে চাইলে আঃ রশিদ মিয়া বলেন, আমাদের কারো জন্মগত রোগ এটি নয়, তবে আমি  প্রথমে এ রোগে আক্রন্ত হই, পরে ধারাবাহিকভাবে আমার বড় ছেলে জজ মিয়া, মেজো ছেলে জহিরুল ইসলাম ও ছোট ছেলে তাজুল ইসলাম এবং জজ মিয়ার ছেলে নাতি নজরুল ইসলামও এ রোগে আক্রান্ত হয়। তিনি আরো বলেন, আমার পরিবারের পাঁচ জনই বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা করে জমিজমা যা ছিল সব বিক্রী করে দিয়েছি, তবুও আমরা এ রোগ থেকে পরিত্রাণ পাইনি। আমার পরিবারে উপর্জন করার কেউ নেই, এখন আমরা নিঃস্ব হয়ে এক দিকে পায়ের ব্যথা অন্য দিকে পেটের ক্ষুধা নিয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছি। এমতাবস্তায় আমার মা- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহায্য কামনা করছি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ