ঢাকা, বৃহস্পতিবার 13 September 2018, ২৯ ভাদ্র ১৪২৫, ২ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

কোটা সংস্কারে প্রজ্ঞাপন জারির দাবিতে ঢাবিতে বিক্ষোভ

কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপন জারি না করে বিসিএস’র বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করার প্রতিবাদে ও ৩ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে গতকাল বুধবার রাজধানীতে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয় -সংগ্রাম

স্টাফ রিপোর্টার : সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপন না দিয়ে ৪০তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছেন আন্দোলনকারীরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় কোটা সংস্কারসহ তিন দফা দাবিতে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করেন। দাবি না মানলে কঠোর আন্দোলনের ঘোষণা দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন আন্দোলনরত ছাত্রছাত্রীরা।
গতকাল বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) টিএসসিতে বিক্ষোভ মিছিল-পরবর্তী এক সমাবেশে ওই  ঘোষণা দেন ছাত্ররা। এর আগে আন্দোলনকারীদের প্ল্যাটফর্ম ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদে’র ব্যানারে বিক্ষোভ মিছিল করেন তারা।
গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সায়েন্স লাইব্রেরির সামনে থেকে আন্দোলনকারীরা প্রথমে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। মিছিলটি শাহবাগের পাবলিক লাইব্রেরি হয়ে টিএসসি ঘুরে আবারও ঢাবির কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে যায়। সেখানে কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপন ছাড়াই ৪০তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তি ছাত্রসমাজ মানে না বলে তারা স্লোগান দিতে থাকেন। পরে সেখান থেকে আবারও মিছিল বের করে আন্দোলনকারীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলাভবন, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ, মুহসীন হল, ভিসি চত্বর হয়ে টিএসসিতে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন।
মিছিল শেষে সমাবেশে পরিষদের নেতারা বলেন, ছয় মাস আগে প্রধানমন্ত্রী জাতীয় সংসদে কোটা বাতিলের ঘোষণা দেন। কিন্তু এত দিন পরেও সে ঘোষণা বাস্তবায়িত হয়নি। উপরন্তু ছাত্রদের নামে মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে।’ এ সময় সরকার ও ঢাবি প্রশাসনের প্রতি ছাত্রদের বিরুদ্ধে করা সব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান তারা।
পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নুর বলেন, যৌক্তিক দাবি সত্ত্বেও কোটা সংস্কার আন্দোলনকারী ছাত্রদের ওপর হামলা করা হয়েছে এবং তাদের নামে মামলা দেয়া হয়েছে। আমরা কোটা বাতিল চাইনি। প্রধানমন্ত্রী কোটা বাতিলের ঘোষণা দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী চাইলে কোটা বাতিল করতে পারেন। কোটা সংস্কার করলে পাঁচ দফার আলোকে করতে হবে বলে জানান নুরুল হক।
আন্দোলনকারীদের তিন দফা হলো ছাত্রদের ওপর মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করা, তাদের ওপর হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া ও পাঁচ দফার আলোকে কোটা সংস্কার করা।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ