ঢাকা, সোমবার 17 September 2018, ২ আশ্বিন ১৪২৫, ৬ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

শিগগিরই চট্টগ্রাম বাণিজ্যিক রাজধানী ঘোষণার বাস্তবায়ন হবে

প্রধানমন্ত্রীর সাবেক মুখ্য সচিব মো. আব্দুল করিম বলেছেন, শিগগিরই চট্টগ্রাম বাণিজ্যিক রাজধানী ঘোষণার বাস্তবায়ন হবে। পরিকল্পনা বাস্তবায়নে স্থানীয় সকল জনপ্রতিনিধি ও সরকার সংশ্লিষ্টরা ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে না আসলে কোনো উদ্যোগই বাস্তবায়ন সম্ভব নয়। চট্টগ্রাম বন্দর তথা চট্টগ্রামকে বাণিজ্যিক রাজধানী হিসেবে গড়ে তুলতে পারলে বাংলাদেশ লাভবান হবে।
বাণিজ্যিক রাজধানী বাস্তবায়ন পর্ষদের সভাপতি এস এম সিরাজুদ্দৌলার সভাপতিত্বে গত বুধবার চট্টগ্রাম নগরীর স্টেশন রোডস্থ একটি হোটেলের সম্মেলন কক্ষে বাণিজ্যিক রাজধানী বাস্তবায়ন পর্ষদের উদ্যোগে পেশাজীবী সম্মিলন, ঈদ পুনর্মিলনী ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, সরকার ও চট্টগ্রামবাসীর সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বাণিজ্যিক রাজধানী বাস্তবায়ন সম্ভব। প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রামের উন্নয়নের বিষয়ে অত্যন্ত আন্তরিক। তবে এক্ষেত্রে বাণিজ্যিক রাজধানী বাস্তবায়নে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়াকে আরো আন্তরিক হতে হবে। চট্টগ্রাম বন্দরের দক্ষতা বাড়লেই সারা বাংলাদেশের দক্ষতা বাড়বে। এখন শুধু প্রয়োজন পরিকল্পিতভাবে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত উন্নয়ন প্রজেক্টগুলো বাস্তবায়ন করা।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যের অ্যাডভোকেট শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী বলেন, বাণিজ্যিক রাজধানী বাস্তবায়নে চট্টগ্রামবাসী সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। শুধুমাত্র কর্ণফুলী নদীকে রক্ষা করতে পারলে তার অনেকটা বাস্তবায়ন সম্ভব। যেখান থেকে আমরা অনেকটা পিছিয়ে আছি। সম্মিলিত পদক্ষেপ না নিলে বাণিজ্যিক রাজধানী কখনো চূড়ান্ত বাস্তবে রূপ নেবে না। পাশাপাশি একটি বাসযোগ্য চট্টগ্রাম গড়ে তুলতে প্রধান অন্তরায় হচ্ছে অপরিকল্পিত নগরায়ন।
সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন সংগঠনের মহাসচিব সালেহ আহমেদ সুলেমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রফেসর ডা. এ কিউ এম সিরাজুল ইসলাম, নগর পরিকল্পনাবিদ অধ্যাপক প্রকৌশলী আলী আশরাফ, ড. জিনবোধি ভিক্ষু, মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অ্যাড. সুনীল সরকার, শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন কার্যকরী সভাপতি অধ্যক্ষ ডা. আবদুল করিম, প্রধান সমন্বয়কারী অ্যাডভোকেট জিয়া হাবীব আহসান, সহ সভাপতি কাজী গোলাপ রহমান ও অ্যাড. ছৈয়দ মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন, উপদেষ্টা মোহাম্মদ ফরিদ, সহ-সভাপতি জিয়া উদ্দিন খালেদ চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব মো. কুতুব উদ্দিন ও সাংবাদিক ভূপেন দাশ, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মিটুল দাশ গুপ্ত, সাংবাদিক আবসার মাহফুজ, প্রচার ও প্রকাশনা সচিব এইচ. এম আলমগীর রানা, প্রেস সচিব এম. হাসেম তালুকদার, জনসংযোগ ও যোগাযোগ সচিব এহসান উল্লাহ জাহেদী। সভা সঞ্চালনা করেন আবৃত্তি শিল্পী ও লেখিকা দিলরুবা খানম।
সভায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপিকা হাসিনা জাকারিয়া বেলা, অধ্যাপিকা হাসনা বানু, সৈয়দ জোবাইদুল আলম, এস এম ওসমান, শাহনেওয়াজ আলী মির্জা, এম শাহীন হায়দার, নাসির হোসাইন জীবন, মো. রাশেদুল আলম তালুকদার, অ্যাড. আজিম উদ্দিন লাভলু, সোলাইমান বাদশা প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ