ঢাকা, বৃহস্পতিবার 20 September 2018, ৫ আশ্বিন ১৪২৫, ৯ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ আজ আফগানিস্তান

স্পোর্টস রিপোর্টার : এশিয়া কাপে এক ম্যাচ খেলেই ‘বি’ গ্রুপ থেকে সুপার ফোর নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ বড় ব্যবধানে হারায় শ্রীলংকাকে। অবশ্য এই গ্রুপ থেকে সুপার ফোর নিশ্চিত করেছে আফগানিস্তানও। আফগানিস্তানও হারায় শ্রীলংকাকে। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে আজ বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান। এই ম্যাচ জিতে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার টার্গেট দু-দলের সামনে। দুটি দলই প্রথম ম্যাচে শ্রীলংকাকে হারিয়ে আত্ববিশ্বাস বাড়িয়ে নিয়েছে। ফলে আজ জয়ের সুযোগ আছে দুটি দলের সামনেই। এ ম্যাচের বিজয়ী দল গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনাল খেলবে। আবু ধাবি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় বিকেল সাড়ে ৫টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে মাঠে নামার আগে আফগানিস্তানের বিপক্ষে জয় ছাড়া অন্য কিছুই ভাবছে না বাংলাদেশ। জয়ের লক্ষ্য নিয়েই আফগানদের মুখোমুখি হবে টাইগাররা। ওয়ানডে ক্রিকেটে এখন পর্যন্ত পাঁচবার মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান। তিনবার জয় পেয়েছে টাইগাররা। দু’টি ম্যাচ জিতেছে আফগানার। তবে এশিয়া কাপে একবার মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান। সেটা ২০১৪ সালের এশিয়া কাপে। ফতুল্লায় ঐ ম্যাচে ৩২ রানে জিতেছিল আফগানিস্তান। আজ বাংলাদেশের সামনে জয়ী হয়ে প্রতিশোধ নেয়ার সুগোগ। তবে কাজটা কঠিন হতে পারে বাংলাদেশের জন্য। অবশ্য শ্রীলংকাকে উড়িয়ে দিয়ে এবারের আসরে যাত্রা শুরু করে বাংলাদেশ। ১৩৭ রানের জয়ে দুর্দান্ত শুরু হয় টাইগারদের। তবে বাংলাদেশের মত শুভ সূচনা করে আফগানিস্তানও। শ্রীলংকার বিপক্ষে ৯১ রানের জয় তুলে নেয় আফগানরা। প্রথম ম্যাচে জিতে দু-দলই একম্যাচ হাতে রেখে সুপার ফোর নিশ্চিত করেছে। তাই শেষ চারে খেলার চাপও নেই বাংলাদেশ বা আফগানিস্তানের উপর। যে কারণে ম্যাচটি  অনেকটাই নিয়ম রক্ষার।  তারপরও জয়ের ব্যাপারে মরিয়া থাকবে দু-দল। এই ম্যাচে বাংলাদেশের চিন্তার কারন হতে পারে আফগানিস্তানের দুই স্পিনার রশিদ খান ও মুজিব উর রহমান। তারপরও বাংলাদেশ দলের  দুঃশ্চিন্তার নাম ইনজুরি সমস্যা। এছাড়া বড় দুঃশ্চিন্তার বিষয় হতে  পারে তামিম  ইকবালের অনুপুস্থিতি। শ্রীলংকার বিপক্ষে ম্যাচে আঙ্গুলের ইনজুরিতে পড়েন বাংলাদেশের ড্যাশিং ওপেনার। ভাঙ্গা আঙ্গুল নিয়েই  ম্যাচের শেষের দিকে এক হাতে ব্যাটও করেছেন তামিম। সঙ্গ দিয়েছেন সাবেক অধিনায়ক ও নির্ভরতার প্রতীক মুশফিকুর রহিমকে। এতে শেষ উইকেটে ৩২ রান পায় বাংলাদেশ। যা বিশ্বরেকর্ড হিসেবে লিপিবদ্ধ হয়েছে। কিন্তু আঙ্গুলে চিড় ধরায় এশিয়া কাপ শেষ হয়ে গেছে তামিমের। ফলে তামিমের জায়গায় দলের হয়ে ইনিংস উদ্বোধণ করতে পারেন নাজমুল হোসেন শান্ত। দেশের হয়ে মাত্র এক টেস্ট খেলেছেন শান্ত। যদি ওয়ানডে একাদশে সুযোগ পান তবে নিজেকে উজার করে দিতে চান শান্ত। ইনজুরি নিয়ে শ্রীলংকার বিপক্ষে ১৪৪ রানের মহাকাব্যিক এক ইনিংস খেলেছেন মুশফিক। ১১টি চার ও ৪টি ছক্কায় ১৫০ বলে নিজের ইনিংস সাজান তিনি। শেষ চারের কথা মাথায় রেখে আফগানিস্তানের বিপক্ষে মুশফিককে  বিশ্রামে রাখতে পারে বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্ট। সাম্প্রতিক সময়ে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান। তবে বাংলাদেশের কাছে স্মৃতিটা খুবই বেদনাদায়ক। যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশ আফগানিস্তানের কাছে হোয়াইওয়াশ হয় সাকিব আল হাসানের নেতৃত্বাধীন দলটি। তাই স্বাভাবিকভাবে প্রতিশোধের আগুন জ্বলে উঠারই কথা বাংলাদেশের। মনে মনে হয়তো আগুন ঠিকই জ্বলছে টাইগারদের।

বাংলাদেশ দল : মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক),সাকিব আল হাসান, মোহাম্মদ মিথুন, লিটন দাস, মুশফিকুর রহিম, আরিফুল হক, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন,  মেহেদি হাসান মিরাজ, নাজমুল ইসলাম অপু, রুবেল হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান, আবু হায়দার রনি, নাজমুল হোসেন শান্ত ও মোমিনুল হক।

আফগানিস্তান দল : আসগর আফগান (অধিনায়ক), মোহাম্মদ শাহজাদ, ইহসানুল্লাহ জানাত, জাবেদ আহমাদি, রহমত শাহ, হাশমত শহিদি, মোহাম্মদ নবী, রাশিদ খান, নজিবুল্লাহ জাদরান, মুজিব উর রহমান, আফতাব আলম, সামিউল্লাহ সিনওয়ারি, মুনির আহমেদ কাকার, সৈয়দ আহমদ শেরজাদ, শরাফুদিন আশরাফ ও ওয়াফাদার।

 

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ