ঢাকা, রোববার 23 September 2018, ৮ আশ্বিন ১৪২৫, ১২ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ভোটারবিহীন প্রহসনের নির্বাচনের ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছে পুলিশ প্রশাসন -ছাত্রশিবির

সিরাজগঞ্জ থেকে নিরপরাধ শিবির কর্মীদের গ্রেফতার ও উদ্দেশ্যেপ্রণোদিতভাবে অস্ত্র মামলায় জড়ানোর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।
গতকাল শনিবার দেয়া যৌথ প্রতিবাদ বার্তায় ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত ও সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন বলেন, ক্ষমতাসীন ফ্যাসিবাদী সরকারের ভোটারবিহীন একতরফা প্রহসনের নির্বাচনের ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছে পুলিশ প্রশাসন। তারই অংশ হিসেবে আ.লীগ নেতাকর্মীদের কথা মতো সিরাজগঞ্জে নিরপরাধ কর্মীদের গ্রেফতার করে মিথ্যা অস্ত্র মামলা দিয়েছে পুলিশ। যা পুলিশের দায়িত্বহীনতার আরেকটি ঘৃণ্য নজির। গত শুক্রবার স্থানীয় একটি মসজিদে পবিত্র আশুরার আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল চলা কালে স্থানীয় আ’লীগ নেতাকর্মীরা মসজিদের বাইরে তালা লাগিয়ে দিয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশও দায়িত্ববোধের তোয়াক্কা না করে আ.লীগ নেতাকর্মীদের আজ্ঞাবহ হয়ে নিরপরাধ কর্মীদের গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়। কিন্তু এখানেই পুলিশের দায়িত্বহীনতা থেমে থাকেনি। তারা বলেন, থানায় নেয়ার পর পরিকল্পিতভাবে পেট্রোলবোমা উদ্ধারের নাটক সাজিয়ে তাদেরকে মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে দিয়েছে। এলাকাবাসী দেখেছে তারা নিরপরাধ ও অস্ত্র উদ্ধার নাটকের সাথে শিবির কর্মীদের কোন সম্পর্ক নেই। কিন্তু পুলিশ উদ্দেশ্যেপ্রণোদিত হয়ে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের জন্য তাদেরকে অস্ত্র মামলায় জড়িয়েছে। পুলিশের এই দায়িত্বহীন কর্মকা- রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক। রাজনৈতিকভাবে ছাত্রশিবিরের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করতে সরকারের ইশারায় ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র করেছে পুলিশ। এর আগেও সরকারের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে গিয়ে সারাদেশে ছাত্রশিবিরের নেতাকর্মীকে পরিকল্পিতভাবে বিভিন্ন বিষয়ের সাথে জড়িয়ে মিথ্যা প্রচারণা চালিয়েছে কিছু দলবাজ পুলিশ কর্মকর্তা। কিন্তু সময়ের ব্যবধানে শিবির কর্মীদের বিরুদ্ধে আনীত সকল অভিযোগই মিথ্যা বলে প্রমাণিত হয়েছে। পুলিশের প্রতি জনগণের কোন আস্থা নেই মানুষ এসব সাজানো নাটক বিশ্বাস করে না। নেতৃদ্বয় পুলিশের এই জঘন্য অপকর্মের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।
নেতৃদ্বয় বলেন, ছাত্রশিবিরের বিরুদ্ধে পুলিশের এসব নাটক বরাবরই মিথ্যা প্রমাণ হয়েছে এবং মিথ্যাচারের জন্য পুলিশ জনগণের ধিক্কার কুড়িয়েছে। কিন্তু পুলিশ এখনো অস্ত্র উদ্ধার নাটক মঞ্চায়নের অনৈতিক ধারা থেকে বেরিয়ে আসতে পারেনি। নেতৃদ্বয় অবিলম্বে এই সাজানো মামলা প্রত্যাহার করে গ্রেফতারকৃত শিবির কর্মীদের নি:শর্ত মুক্তি দাবি করেন। একই সাথে এমন ঘৃণ্য কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ