ঢাকা, সোমবার 24 September 2018, ৯ আশ্বিন ১৪২৫, ১৩ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

রাজনৈতিক অঙ্গনে ইসলামের চর্চাকে প্রসারিত করতে হবে ---মালয়েশিয়ান ওয়ার্কার্স পার্টি

 ২৩ সেপ্টেম্বর, নিউ স্টাইটস টাইমস প্রেস : মালয়েশিয়ার অন্যতম রাজনৈতিক দল ‘মালয়েশিয়ান ওয়ার্কার্স পার্টি’ দলটির সকল সদস্যের সম্মতিক্রমে এর নাম পরিবর্তন করে ‘চধৎঃর অসধহধয ঘবমধৎধ (অসধহধয)’ নাম রেখেছে। এখন থেকে দলটি ‘Parti Amanah Negara (Amanah)’ নামেই তার রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড চালাবে।

দলটির নেতারা জানিয়েছেন, তাদের দলের রাজনৈতিক আদর্শ হিসেবে তারা ইসলামকে বেছে নিয়েছেন এবং এর মাধ্যমে দলটি মালয়েশিয়ার রাজনৈতিক অঙ্গনে ইসলামের চর্চাকে আরো প্রসারিত করতে পারবেন বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তারা ‘Parti Amanah Negara (Amanah)’ নাম ধারণ করে একটি নবদিগন্তের সূচনা করেছেন বলেও জানান।

দলটির অনেক নেতা জানিয়েছেন, এর ফলে মালয়েশিয়ার মুসলিম সমাজের গ্রহণযোগ্যতা এবং সম্মান পূর্বের তুলনায় অনেক বেশী বৃদ্ধি পাবে। দলটির প্রধান মোহাম্মদ সাবু বলেন, বর্তমানে কিছু রাজনৈতিক দল ইসলাম সম্পর্কে খুবই নেতিবাচক ধারণা পোষণ করে আসছে। অন্যদিকে ইসলাম হচ্ছে এমন একটি ধর্ম যা ঐক্য, সহনশীলতা এবং শান্তি শিক্ষা দেয়। ‘আমাদের এই বিভিন্ন বর্ণ, বিভিন্ন সংস্কৃতি এবং বিভিন্ন ধর্মের সমন্বয়ে গড়ে ওঠা এই দেশে প্রতিনিয়ত বর্ণবাদ এবং ধর্মীয় উগ্রতা বেড়ে চলেছে। আমাদের পূর্বের রাজনীতির আদর্শের সাথে বর্তমান Parti Amanah Negara (Amanah)’ এর আদর্শে মূল পার্থক্য হলো আমরা এখন ইসলাম ধর্মের সমস্ত মূল্যবোধ জনগণের নিকটে পোঁছে দিতে চাই।’

‘আমাদেরকে অবশ্যই এই ভিন্নতা ধরে রাখতে হবে। ‘Parti Amanah Negara (Amanah)’ এর দায়িত্ব হবে, ইসলাম ধর্ম মালয়েশিয়ার জন্য ‘রাহমাতুল্লিল আলামিন (সকল সৃষ্টির জন্য দয়া) এই বিষয়টা সকল মালয়েশিয়ানদের নিকটে পোঁছে দেয়া।’  ‘ইসলাম ধর্মের রয়েছে শরিয়ার মত উচ্চ মূল্যবোধের সমাবেশ এবং এটি শুধুমাত্র পুরনো কিছু আইন-কানুনের সমাবেশ নয়।’- মোহাম্মদ সাবু এমনটি বলেন।

প্রসঙ্গত, ‘Parti Amanah Negara (Amanah)’ এর প্রধান মোহাম্মদ সাবু অবশ্য বর্তমানে মালয়েশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বরত আছেন।

তিনি বলেন, আমদের দল বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের মালয়েশিয়ার জনগণের সামনে ইসলামকে আরো বেশী সুসামঞ্জস্যপূর্ণ, বাস্তবিক, নিরাপত্তা দানকারী এবং মৌলিক অধিকারকে স্বীকৃতি দানকারী ধর্ম হিসেবে তুলে ধরতে চেষ্টা করবে। ‘মাঝে মাঝে আমরা (মুসলিমরা) পবিত্র কুরআন তিলাওয়াত করি। কিন্তু এমন অনেকেই রয়েছেন যারা পবিত্র কুরআন অনুযায়ী তাদের জীবন পরিচালনা করেন এবং এর বেশীর ভাগই করেন অমুসলিম দেশসমূহের মানুষজন।’

 ‘উদাহরণ স্বরূপ, জাপানিরা ইসলামিক নীতি কথাগুলোর অনুবাদ খুব বেশী চর্চা করেন। তারা আমাদের চাইতেও বেশী পরিষ্কার, দুর্নীতি মুক্ত এবং দায়িত্বশীল আর অন্যদিকে মুসলিমরা একে অন্যকে হত্যা করার কাজে লিপ্ত আছি যা বর্তমানে ইয়েমেন চলছে‘ -মোহাম্মদ সাবু এমনটি জানান।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ