ঢাকা, বৃহস্পতিবার 13 December 2018, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৫ রবিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

তিন কোটি টাকা লোপাটের ঘটনায় অগ্রণী ব্যাংকের ক্যাশিয়ার গ্রেপ্তার

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

অগ্রণী ব্যাংক মেহেরপুর শাখা থেকে তিন কোটি ২৫ লাখ টাকা লোপাটের মামলায় ক্যাশিয়ার মাহমুদুল করিমকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।খবর আরটিভির।

সোমবার দিনগত মধ্য রাতে মেহেরপুর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মেহেরপুর শাখা ব্যবস্থাপক বাদী হয়ে মাহমুদুল করিমসহ তার পরিবারের পাঁচজনের নামে সদর থানায় একটি মামলা করেন।

গ্রেপ্তার মাহমুদুল করিম বর্তমানে অগ্রণী ব্যাংক মেহেরপুরের বামন্দী শাখায় কর্মরত। তার গ্রামের বাড়ি সদর উপজেলার চাঁদবিল গ্রামে। 

এ মামলায় পলাতক আসামিরা হলেন, মাহমুদুল করিমের স্ত্রী জেসমিন করিম, বড় ভাই সামিউল করিম, বোন নুরুন্নাহার ও চাচা কোমর আলী।

অভিযোগে জানা গেছে, ২০১২ সালের ২২ এপ্রিল থেকে ২০১৭ সালের ১৫ মে পর্যন্ত অগ্রণী ব্যাংক মেহেরপুর শাখায় কর্মরত থাকার পর বামন্দী শাখায় বদলি হন মাহমুদুল করিম। মেহেরপুর শাখায় কর্মরত থাকার সময় ব্যাংকের আন্তঃশাখা থেকে অনলাইন লেনদেনের মাধ্যমে তার পরিবারের চার সদস্যের নামে তিন কোটি ২৫ লাখ টাকা পাঠান।

গেল রোববার ব্যাংক কর্মকর্তাদের তদন্তে বিষয়টি ধরা পড়ার পর রাতে মামলা হয়। এর পরেই মাহমুদুল গ্রেপ্তার হলেও তার পরিবারের বাকি সদস্যরা আত্মগোপন করেন।

এ প্রসঙ্গে অগ্রণী ব্যাংক মেহেরপুর শাখা ব্যবস্থাপক মেহেদি মাসুদ বলেন, আমি চার মাস আগে এ শাখায় যোগদান করার পরে বিষয়টি টের পাই। ব্যাংকের নিজস্ব অর্থ আন্ত:শাখা লেনদেনের মাধ্যমে মাহমুদুল করিম তার পরিবারের সদস্যদের হিসাব নম্বরে পাঠান।

প্রাথমিকভাবে তিন কোটি ২৫ লাখ টাকা লোপাটের তথ্য পাওয়া গেছে। তদন্ত শেষে এর পরিমাণ বাড়তে পারে। তবে লোপাট হওয়া অর্থ ব্যাংকের কোনও গ্রাহকের নয় বলে নিশ্চিত করেন তিনি।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রবিউল ইসলাম বলেন, গ্রেপ্তার মাহমুদুল করিমকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারে জোর চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ