ঢাকা, মঙ্গলবার 16 October 2018, ১ কার্তিক ১৪২৫, ৫ সফর ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ইউএস-বাংলা বিমানের চট্টগ্রামে জরুরি অবতরণ, নিরাপদে যাত্রীরা

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

যান্ত্রিক ত্রুটির  কারণে  ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি বিমান চট্টগ্রাম শাহ আমানত বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করেছে। তবে বিমানটির যাত্রীরা নিরাপদে রয়েছেন বলে জানিয়েছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

ইউএস-বাংলার বিমানটি ঢাকা থেকে কক্সবাজারে যাচ্ছিল। এরপর দুপুর ১টা ৩০ মিনিট বিমানটি নোজ গিয়ার (সামনের চাকা) না নামিয়েই সেটি অবতরণ করে বলে জানিয়েছে শাহ আমানত বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের জেনারেল ম্যানেজার কামরুল ইসলাম জানান, বিমানটিতে ১১ শিশুসহ ১৬৪ জন যাত্রী ও ৭ জন ক্রু ছিল।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বেলা ১১টা ৩০ মিনিটে যাত্রা শুরু করে। পরে কারিগরি ত্রুটির কারণে শাহআমানত বিমানবন্দরে সেটি অবতরণ করে। তবে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

এদিকে শাহ আমানত বিমানবন্দরের উইং কমান্ডার সারোয়ার ই জাহান বলেন, বিমানটির সামনের অংশ রানওয়ে ঘেষে ল্যান্ডিং করায় আপাতত রানওয়ে বন্ধ আছে। এ কারণে ( ১টা ৫০ মিনিট থেকে বেলা ২টা ৫০ মিনিট পর্যন্ত) বিমান ওঠানামা বন্ধ রাখা হয়েছে। বিমানটি রানওয়ে থেকে দ্রুত সরানোর কাজ চলছে।   

সূত্র জানায়, ইউএস-বাংলার বিমানটি সামনের চাকায় ত্রুটি দেখা দেয়ায় চট্টগ্রাম বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করে সেটি দ্রুত সেখানে অবতরণ করা হয়। তবে বিমানটি অবতরণের আগেই বিমান কর্তৃপক্ষ ফায়ার সার্ভিস ও অ্যাম্বুলেন্সসহ প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা করে রাখেন।

শেষ পর্যন্ত বড় ধরনের দুর্ঘটনা এড়ানো সম্ভব হয়েছে। যাত্রীদের মধ্যে আতংক ছড়ালও তারা শেষ পর্যন্ত বিমানটি থেকে নিরাপদে বের হয়ে আসেন, জানায় বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও টেলিভিশনের ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, নোজ গিয়ার কাজ না করায় বিমানটির একেবারে সামনের অংশ প্রথমে ল্যান্ডিং করে। এতে কিছুটা ধোঁয়ার সৃষ্টি হয়। তবে বড় ধরনের দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পায় বিমান ও এর যাত্রীরা। 

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ১২ মার্চ নেপালের ত্রিভূবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় ২৬ বাংলাদেশিসহ ৫১জনের মৃত্যু হয়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ