ঢাকা, বুধবার 3 October 2018, ১৮ আশ্বিন ১৪২৫, ২২ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

রোবট কেড়ে নেবে ৭ কোটি মানুষের কাজ তৈরি করবে আরও ১৩ কোটি

দুনিয়া জুড়ে মানুষের কাজের জগতে উলট-পালট ঘটিয়ে  দেবে  রোবট।  রোবটের কারণে ২০২২ সাল নাগাদ কাজ হারাবে সাড়ে ৭ কোটি মানুষ। কিন্তু এ নিয়ে আতংকিত হওয়ার কিছু  নেই। কারণ ঐ একই সময়ে নতুন প্রযুক্তির কারণে তৈরি হবে ১৩  কোটি ৩০ লাখ নতুন কাজ।
বিশ্ব অর্থনৈতিক  ফোরাম তাদের এক রিপোর্টে এই ভবিষ্যদ্বাণী করেছে। রিপোর্টে বলা হচ্ছে, প্রযুক্তির উন্নয়নের ফলে মানুষের সময়  বেঁচে যাবে অনেক, আর  সেটা তাদের অন্য কাজ করার সুযোগ করে  দেবে। কিন্তু সমালোচকরা হুঁশিয়ারি দিচ্ছেন,  যেসব কাজ চলে যাবে, তার জায়গায়  যে নতুন চাকুরি তৈরি হবে এর  কোন নিশ্চয়তা  নেই। ‘ওয়ার্ল্ড ইকনমিক  ফোরাম’ হচ্ছে সুইজারল্যান্ডভিত্তিক একটি নীতি গবেষণা  কেন্দ্র। প্রতিবছর ডাভোসে তারা একটি সম্মেলনের আয়োজন করে  যেখানে সারা বিশ্বের বিভিন্ন  ক্ষেত্রের নামকরা  লোকদের জড়ো করা হয়। তাদের রিপোর্টটিতে বলা হচ্ছে,  রোবট এবং এলগরিদমের কারণে এখনকার বিভিন্ন কাজের উৎপাদনশীলতা অনেকগুন  বেড়ে যাবে। কিন্তু এর ফলে নতুন কাজ তৈরিরও সুযোগ হবে।
ডাটা এনালিস্ট, সফটওয়্যার  ডেভেলপার,  সোশ্যাল মিডিয়া  স্পেশালিস্ট- এধরনের কাজ প্রচুর বাড়বে। তবে শিক্ষক বা কাস্টমার সার্ভিস কর্মীর মতো কাজ, যাতে কিনা অনেক সুস্পষ্ট মানবিক গুণাবলীর দরকার হয়,  সেরকম কাজও অনেক তৈরি হবে। কিন্তু এই নতুন কাজ তৈরির প্রক্রিয়াটা  যে সহজ হবে না, এই পরিবর্তনের পথে  যে নানা রকম ঘাত-প্রতিঘাত আসবে,  সেটা মনে করিয়ে  দেয়া হচ্ছে রিপোর্টটিতে।
প্রযুক্তির কারণে আবার  কোটি  কোটি মানুষের জন্য নতুন কাজও তৈরি হবে।
একাউন্টিং প্রতিষ্ঠান, কারখানা  থেকে শুরু করে  পোস্ট অফিস, ক্যাশিয়ারের কাজ- রোবট এসে দখল করে  নেবে। এই বিরাট পরিবর্তনের মুখে কর্মীদের নতুন কাজের প্রশিক্ষণ নিতে হবে, নতুন দক্ষতা অর্জন করতে হবে।
উল্লেখ্য মাত্র গত মাসে ব্যাংক অব ইংল্যান্ডের প্রধান অর্থনীতিবিদ অ্যান্ডি হ্যালডেন হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন  যে ব্রিটেনে হাজার হাজার মানুষ  রোবটের কারণে কাজ হারাবে।
মিস্টার হ্যালডেন বলেছিলেন, যদি মানুষের জন্য নতুন কাজ তৈরি করতে হয়,  কোম্পানিগুলোকে অনেক সৃষ্টিশীল হতে হবে। কিন্তু সেটি সম্ভব হবে কি না তা নিয়ে সংশয় রয়েছে তার। -ববিসি

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ