ঢাকা, বুধবার 3 October 2018, ১৮ আশ্বিন ১৪২৫, ২২ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

হিজড়া জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে গাইবান্ধায় ‘উত্তরণ ডেইরি ফার্মের’ উদ্বোধন

হিজড়া উন্নয়ন সংস্থাকে বিনামূল্যে ৫টি গাভী প্রদান করা হয়

গাইবান্ধা সংবাদদাতা : পিছিয়ে পড়া তৃতীয় লিঙ্গের (হিজড়া) জনগোষ্ঠীর জীবন মান উন্নয়নে গাইবান্ধা জেলা পুলিশের সহযোগিতায় ঢাকাস্থ উত্তরণ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে গাইবান্ধার হিজড়া উন্নয়ন সংস্থাকে বিনামূল্যে ৫টি গাভী ও ৩টি বাছুর প্রদান করা হয়। গত ২৮ সেপ্টেম্বর শুক্রবার এই গাভীগুলো দিয়ে গাইবান্ধা জেলা শহরের ডেভিড কোম্পাড়ায় হিজড়াদের বাড়ি সংলগ্ন ‘উত্তরণ ডেইরী ফার্ম’ এর উদ্বোধন করা হয়।
বাংলাদেশ পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স ঢাকার ডিআইজি (অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অ্যান্ড ডিসিপ্লিন) হাবিবুর রহমান আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। গাইবান্ধার পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়ার সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আলোচনায় অংশ নেন গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক গৌতম চন্দ্র পাল, রংপুর রেঞ্জের এডিশনাল ডিআইজি আব্দুল মজিদ, পৌরসভার প্যানল মেয়র জিএম চৌধুরী মিঠু, ঢাকা উত্তরণ ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান শায়ক, হিজড়া উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি মৌ খাতুন প্রমুখ।
প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, ঢাকার এই উত্তরণ ফাউন্ডেশন নামে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনটি বাংলাদেশের পিছিয়ে পড়া তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ হিজড়া এবং বেদে সম্প্রদায়ের জীবন মান উন্নয়নের লক্ষ্যে ২০১১ সাল থেকে নানা জনকল্যাণমূলক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে আসছে। এছাড়াও ওই সংগঠনটি পথশিশুদের শিার উন্নয়নেও কার্যক্রম পরিচালনা করছে। উত্তরণ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ডিআইজি হাবিবুর রহমানের উদ্যোগে এই লক্ষ্য বাস্তবায়নে উত্তরণ ফাউন্ডেশনটি প্রতিষ্ঠিত হয়।
গাইবান্ধার পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া ব্যক্তিগত উদ্যোগে এ জেলার হিজড়া জনগোষ্ঠীর জীবন মান উন্নয়নে উদ্যোগ গ্রহণ করেন। তাঁর প্রচেষ্টায় এবং অনুরোধে ঢাকাস্থ উত্তর ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান তার উত্তর ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে গাভী প্রদানসহ হিজড়াদের কল্যাণে নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেন।
গাইবান্ধায় হিজড়াদের উত্তরণ ডেইরী ফার্ম উদ্বোধনকালে এ জেলার হিজড়া জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে গাভী ও বাছুর প্রদান ছাড়াও আরো নানা কল্যাণমূলক প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে বলেও হাবিবুর রহমান তাঁর বক্তব্যে উল্লেখ করেন।
তিনি বলেন, অবহেলিত এই জনগোষ্ঠী আমাদের সমাজে নানাভাবে নিগৃহীত এবং অধিকার বঞ্চিতভাবে অমানবিক জীবন যাপন করছে। সুতরাং তাদের কল্যাণে তাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সর্বস্তরের মানুষের প্রতি তিনি আহবান জানান। তিনি উল্লেখ করেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতোমধ্যে তৃতীয় লিঙ্গের এই জনগোষ্ঠীকে সামাজিক এবং রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি প্রদান করে তাদের অধিকার আদায় ও উন্নত জীবন যাপনের সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ