ঢাকা, রোববার 7 October 2018, ২২ আশ্বিন ১৪২৫, ২৬ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

লেখাপড়ার পাশাপাশি ডিম বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছে মামুন

হালুয়াঘাট (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা : দিনে স্কুল রাতে ডিম বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছে দরিদ্র পরিবারের পিতৃহীন মামুন। মামুনের বাড়ি হালুয়াঘাট উপজেলার মনিকুড়া গ্রামে। মামুন হালুয়াঘাট আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র। ক্লাসে ভাল ছাত্র হিসেবে পরিচিত সে। আট বছর পূর্বে রোগাক্রান্তÍ হয়ে পিতার মৃত্যু হয়। বর্তমানে সংসারের হাল ধরার মত কেও নেই।
মামুন জানায়, সকালে ঘুম থেকে উঠে লেখাপড়া, গোসল, খাওয়া শেষ করে স্কুলে যাই। ৪ টা সময় স্কুল ছুটির পর বাড়িতে যেয়ে খাবার শেষ করে পড়তে বসি। সন্ধ্যা হলে মা ডিম সিদ্ধ করে দেয়। সিদ্ধ ডিম হালুয়াঘাট বাজারের দোকানে দোকানে বিক্রয় করি। প্রতিদিন  ৫০-৬০ ডিম বিক্রয় করা হলে ১৫০-১৭০ টাকা লাভ হয়। উক্ত টাকা দিয়েই আমার সংসার কোনরকম চলে যায়।
মা ফরিদা খাতুন জানায়, মামুনের লেখাপড়ার বেশ আগ্রহ রয়েছে। অভাবের সংসার হওয়ায় তাকে দিয়ে ডিম বিক্রি করাচ্ছি। মামুনের পিতার স্বপ্ন ছিল মামুন বড় হয়ে চাকরি করবে মানুষের মত মানুষ হবে।
ডিম বিক্রি করার কারণ হিসেবে মামুন জানায়, ব্যবসাটি সহজ ও লাভজনক। তাছাড়া রাতে ডিমের চাহিদা বেশী। সন্ধ্যা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত চলে ডিম বিক্রি।
মনিকুড়া মেহের আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করে বর্তমানে হালুয়াঘাট আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করে মামুন। প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উপবৃত্তি পেয়েছিল সে। ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে থাকাবস্থায়ও উপবৃত্তি পায়। বর্তমানে স্কুলটি সরকারি হওয়ায় উপবৃত্তি পাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে। উপবৃত্তি বন্ধ হলেও স্কুল সরকারি হওয়ায় বেশ খুশি মামুন।
 লেখাপড়ার ক্ষতি হয় কিনা জানতে চাইলে মামুন জানায়, অভাবের সংসার কিছু না করলে না খেয়ে থাকতে হবে। তাই বাধ্য হয়েই লেখাপড়ার পাশাপাশি কিছু করার চেষ্টা করছি।
মামুনের স্বপ্ন বড় হয়ে ইঞ্জিনিয়ার হবে। মানুষের সহযোগিতা করুণা নিয়ে মামুন বাঁচতে চায় না। নিজের পায়ে দাঁড়াতে চায় মামুন। সে সকলের দোয়া চায়।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ