ঢাকা, বৃহস্পতিবার 11 October 2018, ২৬ আশ্বিন ১৪২৫, ৩০ মহররম ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

তারেক রহমানের ফাঁসি হওয়া উচিত ছিল -আইনমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার : ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ের প্রতিক্রিয়ায় আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী এডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, ‘ভয়াবহ এ হামলার মূল পরিকল্পনাকারী ছিলেন ওই সময়ের প্রধানমন্ত্রীর ছেলে তারেক রহমান। আমরা তাঁর সর্বোচ্চ সাজা ফাঁসি চেয়েছিলাম। মামলার নথিপত্র পর্যালোচনায় তাঁর ফাঁসি হওয়াই উচিত ছিল। গতকাল বুধবার রায় ঘোষণার পর আইনমন্ত্রী নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।
এর আগে দুপুরে রাজধানীর নাজিমুদ্দিন রোডে পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারের মূল ফটকের সামনের লাল দালানে স্থাপিত ঢাকার ১ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক শাহেদ নূর উদ্দিনের আদালত এ মামলার রায় দেন। রায়ে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদন্ডাদেশ দেন। এ ছাড়া বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ ১৯ জনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছেন। ৪৯ আসামির মধ্যে বাকিদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেওয়া হয়েছে।
রায়ের প্রতিক্রিয়ায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, ‘মোটের ওপর আমরা এ রায়ে খুশি। যেখানে দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতি চালু হয়েছে, সেখানে এ রায় আমাদের খুশি করেছে। তারেক রহমানের নির্দেশেই এ মামলার তদন্ত ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করা হয়েছে। জজ মিয়া নাটক সাজানো হয়েছে। মামলার আলামত নষ্ট করা হয়েছে।’
আইনমন্ত্রী বলেন, তারেক রহমান মূলত আওয়ামী লীগকে নিশ্চিহ্ন করতে চেয়েছেন। তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যেই এ গ্রেনেড হামলা চালানো হয়েছিল। এতে কোনো সন্দেহ নেই।
এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন কি না জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা রায়ের কপি পর্যালোচনা করে তারপর সিদ্ধান্ত নেব, তারেক রহমানের সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদন্ড চেয়ে আপিল করা হবে কি না। এ জন্য আমাদের কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ