ঢাকা, শনিবার 13 October 2018, ২৮ আশ্বিন ১৪২৫, ২ সফর ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

খাসোগি হত্যার প্রমাণ তুরস্কের হাতে

 

১২ অক্টোবর, আনাদলু এজেন্সি, রয়টার্স : সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে ইস্তাম্বুলে সৌদি আরবের কনস্যুলেট ভবনের ভেতর হত্যার প্রমাণ তাদের হাতে আছে বলে দাবি করেছে তুরস্ক।

তুরস্ক সরকার যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের বলেছেন, তাদের হাতে এমন কয়েকটি অডিও এবং ভিডিও রেকর্ড আছে যা থেকে খাসোগিরকে সৌদি কনস্যুলেটের ভেতর হত্যার প্রমাণ করা সম্ভব।

 সৌদি সাংবাদিক খাসোগি গত ২ অক্টোবর তুর্কি বাগদত্তা হাতিস চেঙ্গিসকে বাইরে দাঁড় করিয়ে রেখে ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে প্রবেশ করেন। সেখানে তিনি তার আগের বিয়ের তালাকের কাগজপত্র সংগ্রহ করতে গিয়েছিলেন।

তুরস্ক এবং খাসোগির বাগদত্তার দাবি, তাকে কনস্যুলেট ভবনের ভেতরে হত্যা করার পর লাশ সরিয়ে ফেলা হয়েছে। রিয়াদ এ অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বলেছে, কিছুক্ষণ পরই খাসোগি কনস্যুলেট থেকে বেরিয়ে যান।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ান সৌদি আরব সরকারকে তাদের দাবির পক্ষে প্রমাণ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

এর আগে তুরস্কের কয়েকটি গণমাধ্যম সিসিটিভি ক্যামেরার কিছু ফুটেজ প্রকাশ করে খাসোগিকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছিল।

ওই ভিডিওতে দেখা যায়, সন্দেহভাজন কয়েকজন সৌদি গোয়েন্দা কর্মকর্তা ইস্তাম্বুলের বিমানবন্দর দিয়ে তুরস্কে প্রবেশ করছেন এবং বেরিয়ে যাচ্ছেন।

এখন তুরস্ক বলছে, তাদের হাতে কনস্যুলেটের ভেতরের কিছু ভিডিও এবং অডিও আছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক তুর্কি কর্মকর্তা বলেন, “অডিওতে কনস্যুলেটের ভেতরের কিছু কথাবার্তা শোনা যায়, যা থেকে খাসোগি সেখানে প্রবেশের পর কী ঘটেছিল তা অনুমান করা সম্ভব।

 “সেখানে আরবি ভাষায় কয়েকজনকে কথা বলতে শোনা যাচ্ছে। তাকে কিভাবে জিজ্ঞাসাবাদ, নির্যাতন এবং হত্যা করা হয়েছে সেটা আপনি অডিওতে শুনতে পাবেন।”

ভিডিওতে নিখোঁজ হওয়ার দিন খাসোগি কোথায় কোথায় গিয়েছিলেন তা দেখানো হয়েছে বলে জানায় ওয়াশিংটন পোস্ট। ভিডিওর একটি কপি দৈনিকটি হাতে পেয়েছে বলেও জানিয়েছে।

দীর্ঘদিন ধরে সৌদি রাজপরিবারের সঙ্গে কলামনিস্ট খাসোগির উষ্ণ সম্পর্ক ছিল বলে জানায় ওয়াশিংটন পোস্ট। তবে সম্প্রতি তিনি বর্তমান সরকার এবং যুবরাজ প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের বেশ কিছু কার্যকলাপের সমলোচনা করে কয়েকটি কলাম লিখেছেন।

খাসোগির ‘নিখোঁজ’ রহস্য নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এর শেষ দেখার কথা জানিয়েছেন। এজন্য তিনি সৌদি আরবের উপর চাপ বাড়াচ্ছেন বলেও ধারণা করা হচ্ছে।

খাসোগি নিখোঁজ কা-ে যুক্তরাষ্ট্র সৌদি রাজপরিবারকে দায়ী ভাবছে কিনা, গত বুধবার টেলিফোনে ফক্স নিউজ চ্যানেলের করা এমন প্রশ্নের জবাবেও মার্কিন প্রেসিডেন্টের কণ্ঠে ছিল উদ্বেগের সুর।

তিনি বলেন, “তেমনটাই মনে হচ্ছে বলে আপনারা বলতে পারেন, আমরা এটি দেখছি।”

তুরস্ক নতুন অডিও এবং ভিডিও যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের দেখিয়েছে কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। সৌদি আরব খাসোগি নিখোঁজ নিয়ে তুরস্কের সঙ্গে যৌথ তদন্ত দল গঠনের যে প্রস্তাব দিয়েছে, ইস্তাম্বুল বৃহস্পতিবার তাতে তাদের সম্মতির কথা জানিয়েছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ