ঢাকা, শনিবার 13 October 2018, ২৮ আশ্বিন ১৪২৫, ২ সফর ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ব্যাংকিং খাতে খেলাপি ঋণ ও আমদানি বেড়ে যাওয়ায় আইএমএফ’র উদ্বেগ

স্টাফ রিপোর্টার : বাংলাদেশের ব্যাংকিং খাতে খেলাপি ঋণ ও আমদানি বেড়ে যাওয়া নিয়ে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। একই সঙ্গে এসব বিষয়ে সরকারের নজরদারি বাড়াতে বলেছে সংস্থাটি। ইন্দোনেশিয়ার বালিতে বিশ্বব্যাংক-আইএমএফ-এর বার্ষিক সভা চলাকালে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত-এর সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক দ্বি-পাক্ষিক বৈঠকে এ উদ্বেগের কথা জানায় আইএমএফ।
আইএমএফ-এর সঙ্গে বৈঠক প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেন, তারা শুধু বাংলাদেশের অর্থনীতি বিষয়ক দু’তিনটি পয়েন্ট উত্থাপন করেছে। এগুলো হচ্ছে এনপিএল (খেলাপি ঋণ) কেন বেড়ে গেল এটি একটি সমস্যা। ব্যাংকগুলোর প্রভিশনিং ঠিকমত হচ্ছে না। তারা এ বিষয়ে মনোযোগ দিতে বলেছে। আর আমদানি কেন এতো বাড়লো সেদিকেও নজর দিতে বলেছে আইএমএফ। বাংলাদেশ ব্যাংকের গর্বনর জানিয়েছেন যে, আমদানির প্রবণতা এখন কমে আসছে।
অর্থমন্ত্রী বলেন, ব্যাংকিং খাতের সংস্কার নিয়ে আমি একটি প্রতিবেদন তৈরি করবো। এখানে সব কিছুর উল্লেখ থাকবে। আগামী এক মাসের প্রতিবেদনটি তৈরির কাজ শেষ হবে।
তিনি বলেন, সাধারণত একটা কথা পাবলিকলি বলা হয় সেটা হচ্ছে, হাই ইমপোর্ট ম্যাটার অফ ট্রান্সফার অব ফান্ড মানে ‘মুদ্রা পাচার’। কিন্তু এই ধরণের বিশ্লেষণের সাথে আমি একমত নই। এই মুহূর্তে বাংলাদেশ থেকে খুব বেশি মুদ্রা পাচার হচ্ছে না। অর্থ পাচার হয় তখন, যখন পরিস্থিতি থাকে অনিশ্চিত। কী হবে দেশে ইত্যাদি, ইতাদি। তবে আমার মনে হয় না যে, বাংলাদেশ এখন অনিশ্চয়তা বিরাজ করছে।
আগামী ২০৫০ সালের মধ্যে বিদ্যমান দারিদ্রের সংখ্যা অর্ধেকে নামিয়ে আনতে চায় বিশ্বব্যাংক। এ লক্ষ্যে জনগণের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, সামাজিক নিরাপত্তা ও তথ্যপ্রযুক্তি খাতে জোর দিতে সদস্য দেশগুলোর সরকারের প্রতি জোরালো আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি।
জিম ইয়ং কিম বলেন, গত ২৫ বছরে বিশ্বে অতি দরিদ্র মানুষের সংখ্যা ১০০ কোটির বেশি কমেছে। এটা উল্লেযোগ্য হলেও বর্তমানে বিশ্বের প্রায় ৭৪ কোটি মানুষ চরম দারিদ্রের মধ্যে বসবাস করে। তাদের দৈনিক আয় ১ দশমিক ৯০ ডলারেরও কম। এছাড়া বিশ্বের এক-চতুর্থাংশ জনগণ দিনে ৩ ডলারের কম আয় করে যা নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশে দারিদ্রের স্তর। আগামী ২০৫০ সালের মধ্যে বিদ্যমান দারিদ্রের সংখ্যা অর্ধেকে নামিয়ে আনতে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, সামাজিক নিরাপত্তা ও তথ্য প্রযুক্তি খাতে জোর দেয়ার আহ্বান জানান তিনি।
আইএমএফ-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিষ্টিনা লাজার্ড বলেন, গত ৭০ বছরে সারাবিশ্বে যে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও সমৃদ্ধি হয়েছে তা অভূতপূর্ব। কিন্তু বিশ্ব অর্থনীতিতে সাম্প্রতিক কিছু নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া এবং বাণিজ্য নিয়ে যে উত্তেজনা চলছে (যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের চলমান বাণিজ্য যুদ্ধ) এটা বন্ধ না হলে বিশ্ব অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি আগামী দুই বছরে ১ শতাংশ কমে যেতে পারে।
বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের নেতৃত্বে ২৭ সদস্যের একটি প্রতিনিদিল বর্তমানে বালিতে অবস্থান করছে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ