ঢাকা, সোমবার 15 October 2018, ৩০ আশ্বিন ১৪২৫, ৪ সফর ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

আট বছর পার হলেও চার্জশীট দেয়নি পুলিশ

নাটোর সংবাদদাতা: নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলা চেয়ারম্যান ও বনপাড়া পৌর বিএনপির সভাপতি সানাউল্লা নুর বাবু হত্যা মামলার চার্জশীট আট বছরেও দিতে পারেনি পুলিশ। ২০১০ সালের ৮ অক্টোবর বিএনপির মিছিলে হামলা চালিয়ে বাবুকে হত্যা করা হয়। এ সময় চারজন সাংবাদিক, ক্যামেরাম্যানসহ অন্তত ২০ জন আহত হন। এ ঘটনায় বাবুর স্ত্রী মহুয়া নুর কচি আওয়ামী লীগের ২৭ নেতাকর্মীসহ ৪৭ জনকে অভিযুক্ত করে একটি মামলা করেন। মামলার আসামিরা বর্তমানে জামিনে মুক্ত আছেন। এদিকে, সোমবার সানাউল্লা নুর বাবুর মৃত্যুবার্ষিকীতে দলীয় কোন কর্মসূচি না থাকলেও তার পরিবারের পক্ষ থেকে কবর জিয়ারত, মিলাদ মাহফিল ও কাঙালী ভোজের আয়োজন করা হয়েছে। মহুয়া নুর কচি বলেন, সেদিন সানাউল্লা নুর বাবুর নেতৃত্বে বিএনপি নেতাকর্মীরা উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে বনপাড়া বাজারে গেলে সরকারদলীয় নেতা কর্মীরা লাঠিসোঁটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা করলে বাবু, রফিক সরদার ও বিএনপি নেতা জামালউদ্দিন আলীসহ বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হন। পরে বনপাড়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির কিছুক্ষণ পরই বাবু মারা যান। পরদিন মহুয়া নুর কচি বড়াইগ্রাম থানায় জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক বর্তমানে বনপাড়া পৌরসভার মেয়র কে এম এ জাকির হোসেনকে প্রধান করে ৪৭ জনের নামে একটি মামলা করেন। বাবু হত্যা মামলার তদন্ত প্রথমে ডিবি পুলিশ ও পরে সিআইডিতে স্থানান্তর করা হয়। কিন্তু গত আট বছরেও মামলার অভিযোগপত্র দেওয়া হয়নি। কচি জানান, তিনি জিডিএস ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন। আট বছরেও তদন্ত প্রতিবেদন না জমা দেওয়ায় তিনি মামলায় বিচারের আশা ছেড়ে দিয়েছেন। বর্তমানে মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা কে আছেন তিনি জানেন না। কেউ তাঁর সঙ্গে যোগাযোগও করেন না।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ