ঢাকা, শনিবার 27 October 2018, ১২ কার্তিক ১৪২৫, ১৬ সফর ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

শাহজাদপুরে ওয়াপদা বাঁধের মাটি ও গাছ কেটে উজাড় ॥ কর্র্তৃপক্ষ নীরব

শাহজাদপুরে জামিরতা গুদারাঘাট এলাকায় ওয়াপদার মাটি কেটে নেয়া হচ্ছে

শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) সংবাদদাতা: সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার কৈজুরী ইউনিয়নের হাটপাঁচিল থেকে গালা ইউনিয়নের ভেড়াখোলা পর্যন্ত যমুনার অববাহিকায় নির্মাণাধীন (পানি উন্নয়ন বোর্ডের)  কোটি টাকার অবদা বাঁধ প্রকল্পের সদ্য একওয়ার ভুক্ত জমি ও বাড়ীর মাটি দেদারসে বিক্রি করে দিচ্ছে অসাধুমহল। সরে জমিনে ঘুরে গুপিয়াখালি, ভাটপাড়া, জগতলা, জামিরতা, গালা, ভেড়াকোলা এলাকায় ভিটে বাড়ীর মাটি কেটে অন্যত্রে বিক্রি করতে দেখা যাচ্ছে।
জানা যায়, যমুনা নদীর কয়েক যুগের বেশি সময়ের ভাঙ্গনে হাজার হাজার পরিবার গৃহহারা হওয়ায় ভাঙ্গন প্রতিরোধের ব্যবস্থা হিসেবে সরকার হাট পাঁচিল থেকে গালা ও রুপবাটি ইউনিয়ন হয়ে শাহজাদপুর নগরডালাঘাট পর্যন্ত দীর্ঘ বাঁধ নির্মাণ চলছে। এই বাঁধ নির্মাণের জন্য ইতিমধ্যেই বাঁধ এড়িয়ার মধ্যে বসবাসকারি জমি ও বাড়ীর মালিকদের একওয়ারভুক্ত করে তাঁদের উপযুক্ত মূল্যও পরিশোধ করা হয়েছে।
সম্প্রতি বাঁধ নির্মাণকাজ দ্রুত গতিতে শুরু হওয়ায় ঐসব পরিবারকে জায়গা খালি করে দেয়ার নির্দশনা দেওয়ার পরপরই তাঁরা বাসস্থান সরিয়ে নেয়ার পাশাপাশি জমি ও ভিটা বাড়ীর মাটি ও গাছ কেটে অন্যত্রে বিক্রি করছে বেআইনীভাবে। সরে জমিনে দেখা যায়, তাঁরা উপযুক্ত দাম পাওয়ার পরও মাটি কেটে খাল করে মাটি বিক্রি করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।
শুধু একজন নয় যমুনা তীরের সিংহ পরিবারই সরকারের নিকট বিক্রিত জায়গা জমির মাটি ও গাছপালা অন্যত্রে বিক্রি করে অবৈধ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।
এ ব্যাপারে জামিরতা গ্রামের আব্দুল হাকিমের পুত্র মোক্তার হোসেন জানান,  মাটি  কাটা জায়গা ও গাছ সরকারের কাছে বিক্রি করেছি। তারপরেও আমি একা মাটি ও গাছ কাটছিনা আশে পাশের সবাই কাটছে তাই আমিও কাটছি। সবার যা হয় আমারও তাই হবে। এ ব্যাপারে শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহি অফিসার নাজমুল হুসেইন খাঁন জানান, বিষয়টি জানা নেই তবে লিখিত আকারে তাঁকে জানালে তিনি সংশ্লিষ্ট কর্র্তপক্ষের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেবেন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ