ঢাকা,মঙ্গলবার 13 November 2018, ২৯ কার্তিক ১৪২৫, ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

চালু হলো ওয়ালটন ই-প্লাজা অনলাইন সেলস প্রোমোশন

 

ঘরে বসেই অনলাইনে পণ্য কিনতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন এমন গ্রাহকদের জন্য ‘ই-প্লাজা’ চালু করলো দেশের ইলেকট্রনিক্স জায়ান্ট ওয়ালটন। নিয়ম মেনে অর্ডার দিলেই ক্রেতার বাসায় পৌঁছে যাবে পণ্য। এক্ষেত্রে বিভিন্ন ব্যাংকের ডেবিট কার্ড, ক্রেডিট কার্ড, ইন্টারনেট অথবা মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধমে পণ্যের মূল্য পরিশোধের সুবিধা রয়েছে। থাকছে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত ক্যাশ অন ডেলিভারীর সুবিধা। সেই সঙ্গে থাকছে পণ্য ভেদে ২০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড়, ফ্রি হোম ডেলিভারী এবং ইএমআই সুবিধা। আজ রবিবার (১১ নভেম্বর, ২০১৮) রাজধানীতে ওয়ালটনের করপোরেট অফিসে আয়োজিত ‘অনলাইন সেলস প্রোমোশন লঞ্চিং প্রোগ্রাম’ এ এসব কথা জানানো হয়। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ওয়ালটন গ্রুপের পরিচালক এসএম মাহবুবুল আলম ‘ই-প্লাজা’ সেবা উদ্বোধন করেন। 

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটন গ্রুপের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টরস ইভা রেজওয়ানা, এমদাদুল হক সরকার, এসএম জাহিদ হাসান, নজরুল ইসলাম সরকার, সিরাজুল ইসলাম, তানভীর রহমান ও মো. রায়হান, ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর উদয় হাকিম, সিনিয়র এ্যাডিশনাল ডিরেক্টর মফিজুর রহমানসহ অন্যান্য ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে অনলাইন সেলস এর বর্তমান ও ভবিষৎ বাজার সম্ভাবনার উপর প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ওয়ালটনের অপারেটিভ ডিরেক্টর ফিরোজ আলম। এরপর ওয়ালটনের ‘ই-সেবা’ থেকে পণ্য ক্রয়, মূল্য পরিশোধ, প্রোডাক্ট ডেলিভারীসহ বিভিন্ন প্রক্রিয়ার ব্যবহারিক দিক উপস্থাপন করেন ওয়ালটন আইটি বিভাগের অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর শিহান মাহমুদ। 

ওয়ালটন গ্রুপের পরিচালক এসএম মাহবুবুল আলম বলেন, ক্রেতাদের কাছে ওয়ালটন পণ্য আরো সহজলভ্য করে তুলতেই ই-প্লাজা চালু করা হয়েছে। তার প্রত্যাশা- এতে ক্রেতা সার্ভিস সহজতর হওয়ার পাশাপাশি ওয়ালটন পণ্যের বিক্রি আরো বাড়বে। আগামী বছর ই-প্লাজা সেবার মাধ্যমে ১’শ কোটি টাকার পণ্য বিক্রয়ের টার্গেট নির্ধারণ করেন তিনি।   

সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্টের নির্বাহী পরিচালক মো. তানভীর রহমান বলেন, শুধুমাত্র প্লাজা সেলস নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ক্রেতাদের ই-প্লাজা সেবা সেবা প্রদান করা হবে। ওয়ালটনের শক্তিশালী ডেলিভারী পয়েন্টের মাধ্যমে ক্রেতাদের হাতে আরো দ্রুত ওয়ালটন পণ্য পৌঁছে দেয়া সম্ভব হবে। উন্নত ও মানসম্মত কাস্টমার সার্ভিস প্রদানের লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট কর্মীদের নিয়মিত প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। তার প্রত্যাশা- অনলাইন ক্রেতাদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পাবে ওয়ালটনের ই-প্লাজা সেবা। 

ওয়ালটনের ডেপুটি এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর উদয় হাকিম জানান, স্থানীয় বাজারে ইলেকট্রনিক্স ও ইলেকট্রিক্যাল পণ্য গ্রাহকপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে ওয়ালটন। ফলে, সিংহভাগ বাজার নিজেদের করে নিয়েছে ওয়ালটন। ঘরে ঘরে ওয়ালটন পণ্য পৌঁছে দিতে সম্প্রতি বিপণন ব্যবস্থাকে আরো আধুনিকায়ন, যুগোপযোগী এবং বিস্তৃত করা হচ্ছে। এজন্য সমন্বিত বিপণন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে, প্লাজা ও ডিস্ট্রিবিউটর চ্যানেলের পাশাপাশি করপোরেট বিপণনও শুরু করেছে ওয়ালটন। জোর দেয়া হয়েছে আন্তর্জাতিক বিপণনে। নতুন আঙ্গিকে শুরু হলো অনলাইন সেলস। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ