ঢাকা, সোমবার 10 December 2018, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ২ রবিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বে পুলিশের উপর হামলা: ওবায়দুল কাদের

ফাইল ফটো

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

রাজধানীর নয়াপল্টনে পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপির কার্যালয়ের সামনে মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বে তারা পুলিশের উপর হামলা হয়েছে। পুলিশের দুটি গাড়ি তারা পুড়িয়ে দিয়েছে।’

আজ বুধবার ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, সম্পূর্ণ বিনা উসকানিতে, নির্বাচন পেছানোর জন্য পরিকল্পিতভাবে পুলিশের ওপর হামলা করা হয়েছে।এতে পুলিশের ১৩ সদস্য আহত হয়েছে। নির্বাচন পেছানোর যড়ষড় হিসেবে তারা এ হামলা করেছে বলে মনে করেন ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।তিনি বিএনপিকে স্বাধীনতাবিরোধী বলেও আখ্যা দেন। 

উল্লেখ্য, গতকাল নির্বাচন কমিশনের (ইসি) পক্ষ থেকে  মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও জমা দেওয়ার সময় শোডাউন না করতে নির্দেশনা ও সতর্কতা জারি করা হয়। এটি নির্বাচনি আচরণবিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন উল্লেখ করে এমনটি না করতে সতর্কতা জারি করা হয়।

তবে আওয়ামীলীগের মনোনয়নপত্র বিক্রি কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর এ নির্দেশনা ও সতর্কতা জারিতে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছে বিএনপি।দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী প্রশ্ন তোলেন, ‘চারদিন পরে কেন ইসির এমন নির্দেশনা? আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম বিক্রির পরে কেন এমন সতর্কতা?’

ইসির এমন সতর্কতায় বিএনপি অবাক হয়নি উল্লেখ করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘কারণ, নির্বাচন কমিশন পার্টির (আওয়ামী লীগ) কাজের ভূমিকা পালন করছে। প্রশাসনের এত নিয়ন্ত্রণ, গুম-খুনের পরও মনোনয়ন সংগ্রহ করতে মানুষের ভিড় দেখে দিশেহারা হয়ে গেছে সরকার। মনোনয়ন নেওয়ার জন্য দলীয় কার্যালয়ের সামনে সবাই আসবে, এটা স্বাভাবিক।’

প্রতিবাদের বহিঃপ্রকাশ দেখানোর জন্য মানুষের মিছিল বিএনপি কার্যালয়ে আসছে বলে মনে করেন বিএনপির এই নেতা। তিনি বলেন, ‘এত মানুষ দেখে সরকার বিচলিত।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ