ঢাকা, শনিবার 15 December 2018, ১ পৌষ ১৪২৫, ৭ রবিউস সানি ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

ঐক্যফ্রন্টের দাবি ‘পজেটিভলি’ দেখবে ইসি : ফখরুল

সংগ্রাম অনলাইন ডেস্ক:

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, নির্বাচন কমিশনের কাছে একাধিক দাবি তুলে ধরা হয়েছে, ‘এ বিষয়ে তারা বলেছেন, খুব পজেটিভলি চিন্তা করে ব্যবস্থা নেবেন।’

আজ বুধবার বিকেলে আগারগাঁওয়ে ইসির সঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন মির্জা ফখরুল।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘আমরা নির্বাচন তিন সপ্তাহ পিছিয়ে দেওয়ার দাবি জানিয়েছিলাম, তারা বলেছেন, “কমিশনে আলোচনা করে এ ব্যাপারে তারা সিদ্ধান্ত নেবেন।” নির্বাচনে একেবারেই ইভিএম ব্যবহার করা যাবে না, আমরা বলেছি। তারা বলেছেন যে, “তারা শুধু সিটি করপোরেশনগুলোতে সীমিত সংখ্যক ইভিএম ব্যবহারের চিন্তা করছেন। এটা তাদের চিন্তার মধ্যেই রয়েছে।” তারা এটাও বলেছেন যে, “যদি আমরা তাদের বোঝাতে পারি যে ইভিএম পদ্ধতি পুরোপুরিভাবে নিরাপদ নয়, তাহলে সেটাও তারা বিবেচনা করবেন”।’

ফখরুল বলেন, ‘সেনাবাহিনী মোতায়েনের ব্যাপারে তারা বলেছেন, “এটা আমাদের অবশ্যই চিন্তা, ইতিমধ্যে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে তারা নিয়েছেন। প্রতি কেন্দ্রে ব্যবহার করা যাবে কি না-এসব তারা বিবেচনা করবেন।” জনপ্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসন রবপদলের কথা আমরা বলেছি, সেটাও তারা বিবেচনা করে দেখবেন যে, কিভাবে সেটা করা যেতে পারে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘হয়রানিমূলক মামলা এবং গায়েবি মামলা প্রত্যাহার, কারাবন্দী নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তি করতে হবে। এ ব্যাপারে তারা আমাদের কাছে তালিকা চেয়েছেন। আমরা তাদের বলেছি যে, পুলিশ প্রশাসন এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে একটা নির্দেশ জারি করা, যাতে এখন অন্যায়ভাবে, শুধু রাজনৈতিক উদ্দেশে পরবর্তীতে কোনো গ্রেপ্তার করা না হয়। এ বিষয়ে তারা বলেছেন, “এ বিষয়ে খুব পজেটিভলি চিন্তা করে ব্যবস্থা নেবেন”।’

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র বলেন, ‘আমরা এরপরে বলেছি, নির্বাচনে এজেন্টদের নিরাপত্তা প্রদান। এটা তারা নিশ্চিত করেছেন। নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের ব্যাপারে তাদের কোনো বাধা থাকবে না। আমরা বলেছি যে, রিটার্নিং ও সরকারি কর্মকর্তা নিয়োগের ব্যাপারে বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় এসেছে যে, তাদের রাজনৈতিক পরিচয় বা অন্যকিছু জানার জন্য সরকারি দল থেকে তাদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। সেই বিষয়ে তারা বলেছেন, “তারা মনে করছেন, অনেক প্রিজাইডিং (কর্মকর্তা), তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকতে পারে। সেগুলো তারা চেক করছেন”।’

ফখরুল বলেন, ‘মোট কথা তারা সবই শুনেছেন এবং প্রত্যেকবারই শোনেন। কতটুকু করবেন বা কতটুকু করছেন এটা জনগণই ও আপনারা বিবেচনা করবেন।’

ইসির সঙ্গে বৈঠকে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে ১৩ সদস্যের প্রতিনিধি দলের মধ্যে ছিলেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ড. খন্দকার মোশারফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, আবদুল কাদের সিদ্দিকী, মোস্তফা মোহসীন মন্টু, মাহমুদুর রহমান মান্না, সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ, ডা. জাফরউল্লাহ অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, মোকাব্বির খান, এস এম আকরাম ও আবদুল মালেক রতন।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ