ঢাকা, মঙ্গলবার 20 November 2018, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

খালেদা জিয়া একাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন

গতকাল সোমবার ২য় দিনের মতো বিএনপি চেয়ারপার্সনের গুলশান কার্যালয়ে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাকার গ্রহণ চলছে -ছবি সংগৃহীত

স্টাফ রিপোর্টার: কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া একাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল সোমবার গুলশানে চেয়ারপার্সনের কার্যালয়ে বরিশাল বিভাগের সাক্ষাৎকারের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব এই আশাবাদ ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, আমরা মনে করি যে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এখন পর্যন্ত নির্বাচন করার জন্য যোগ্য আছেন এবং নিসন্দেহে তিনি নির্বাচন করতে পারবেন বলে আমরা বিশ্বাস করি। খালেদা জিয়া দলের প্রার্থী হতে ফেনী- ১, বগুড়া-৬ ও বগুড়া-৭ আসনের জন্য দলীয় মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন।
মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন এখনো লেভেলপ্লেয়িং ফিল্ড তৈরি হয়নি। তিনি বলেন, আবারো আমরা বলছি যে, অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে গ্রেফতার বন্ধ করতে হবে, রাজবন্দীদের মুক্তি দিতে হবে। বিশেষ করে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেয়া অত্যন্ত জরুরি বলে আমরা মনে করি।
বিএনপি মহাসচিব বলেন, গণতন্ত্রকে ফিরে পাবার জন্যে, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার জন্যে এবং দেশের মানুষের অধিকারকে ফিরে আনবার জন্যে যে গণতান্ত্রিক আন্দোলন বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যজোট শুরু করেছে, বিরোধী দলগুলো শুরু করেছে তারই অংশ হিসেবে, আন্দোলনের অংশ হিসেবে আমরা এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছি। এই নির্বাচনকে আমরা গণতান্ত্রিক আন্দোলনের হাতিয়ার হিসেবে নিয়েছি। শত প্রতিকুলতার মধ্যেও আমরা গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় ক্ষমতার পরিবর্তনে বিশ্বাস করি। বিশ্বাস করি বলেই আমরা একটা অসমতল ভূমিতে যেখানে সরকার সম্পূর্ণভাবে কর্তৃত্ব করছে এবং তার সমস্ত যে নীল নকশা তা বাস্তবায়ন করছে এর মধ্যেও আমরা নির্বাচনের মনোনয়ন পেতে ইচ্ছুক তাদের সাক্ষাৎকার অব্যাহত রেখেছি। এই প্রতিকুলতা এখন পর্যন্ত একটা লেভেলপ্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করার জন্য যথেষ্ট নয়। সরকার বিরোধী দলের কোনো দাবি গ্রাহ্য করেননি। নির্বাচনকালীন সরকার গঠন করেননি, তারা সংসদ ভাঙেনি।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী যে কথা দিয়েছিলেন যে, নতুন করে গ্রেফতার করা হবে না, মামলা দেয়া হবে না তারও কোনো বাস্তবায়ন নেই। আমরা খবর পেয়েছি যে, আমাদের সাক্ষাৎকারের জন্য যশোরের ভাইস প্রেসিডেন্ট আইয়ুব সাহেবকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এখন পর্যন্ত তার খবর আমরা পাইনি। আমরা প্রায় দেখছি গ্রেফতার করছে এবং কারাগারে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। সবচেয়ে ক্ষোভের বিষয় আমাদের ভালো প্রার্থী তাদের বিরুদ্ধে মামলায় দিয়ে তাদের জামিন না দিয়ে জামিনের শুনানি বিলম্বিত করা হচ্ছে তারিখ নির্বাচনের পরে দেয়া হচ্ছে যেটা একটা নতুন কৌশল। তারা নিম্ন আদালতকে ব্যবহার করে এই নির্বাচনের ওপর প্রভার ফেলছে। আমরা এ বিষয়গুলো নির্বাচন কমিশনের গোচরে নিয়ে এসেছি। সরকারের গোজরে নিয়েছি। কোনো রকমের লেভেলপ্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করার আগ্রহ তাদের মধ্যে দেখা যাচ্ছে না। এ অবস্থায় এই নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু হবে বলে আমরা মনে করি না।
দলের প্রার্থী মনোনয়ন নিয়ে কোন্দল আছে কিনা প্রশ্ন করা হলে ফখরুল বলেন, আমাদের প্রার্থিতা নিয়ে কোনো কোন্দল নেই। আমাদের প্রার্থীরা এখন ঐক্যবদ্ধ। যিনি মনোনয়ন পাবেন তার পক্ষেই সবাই কাজ করবেন। কারণ এই নির্বাচনটাকে আমরা চূড়ান্ত আন্দোলনের অংশ হিসেবে নিয়েছি। এই নির্বাচনের বিজয়ের ওপর নির্ভর করছে বাংলাদেশের গণতন্ত্রের ভবিষ্যৎ। প্রার্থী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে দলের প্রতি আনুগত্যতা ও গণতন্ত্রের প্রতি আনুগত্যতাকে মানদণ্ড হিসেবে দেখা হচ্ছে বলে জানান বিএনপি মহাসচিব।
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে ধানের শীষ প্রতীকে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশীদের দ্বিতীয় দিনের মতো সাক্ষাৎকার নিয়েছে বিএনপি। গুলশানে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সাক্ষাৎকারে যথারীতি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অংশ নিয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। যদিও এ নিয়ে গতকাল নির্বাচন কমিশনে (ইসি) অভিযোগ দিয়েছে আওয়ামী লীগ। তবে সে অভিযোগের বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের কিছুই করার নেই বলে জানিয়েছে ইসি সচিব। একইসাথে তিনি বলেছেন, তারেক রহমান নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘিত হচ্ছে এমন কিছু করেন নি।
গতকাল সোমবার সকাল ১০টার দিকে দ্বিতীয় দিনের সাক্ষাৎকার শুরু হয়। সকাল ১০টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন চলবে বরিশাল বিভাগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার। এরপর বেলা আড়াই থেকে সাক্ষাৎকার নেওয়া হয় খুলনা বিভাগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের। প্রথম দিন সকালে রংপুর বিভাগের ৩৩ আসনে ১৫৮ জন মনোনয়ন প্রত্যাশী সাক্ষাৎকার দেন। এ ছাড়া বিকালে রাজশাহী বিভাগের ৩৯টি আসনের বিপরীতে ৩৬৮ জন সাক্ষাৎকার দেন। তাদের সবাইকে নির্বাচন কমিশনে মনোনয়নপত্র জমা দিতে বলা হয় বিএনপির মনোনয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে। একই সঙ্গে বিএনপির মহাসচিব স্বাক্ষরিত প্রত্যায়নপত্র দেয়া হয়। সব বিভাগের সাক্ষাৎকার শেষ হলে আগামী ৮ ডিসেম্বর প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত করা হবে বলেও বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যরা মনোনয়ন বোর্ডের সদস্য হিসেবে রয়েছেন। তবে মনোনয়ন বোর্ডে সভাপতিত্ব করছেন দলের মহাসচিব। মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত চট্টগ্রাম বিভাগ এবং বেলা আড়াইটা থেকে কুমিল্লা ও সিলেট বিভাগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া ২১ নবেম্বর বুধবার সকাল ৯টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত ময়মনসিংহ ও ফরিদপুর বিভাগ এবং বেলা আড়াইটা থেকে শেষ না হওয়া পর্যন্ত ঢাকা বিভাগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার নেয়া হবে।
একাদশ জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপি খুব শিগগিরই ইশতেহার প্রকাশ করতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী। সোমবার রাজধানীর গুলশানে বিএনপির চেয়ারপার্সনের কার্যালয়ের সামনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন তিনি। আমির খসরু বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ইশতেহার প্রস্তুত করছে বিএনপি। যার মূল বিষয়বস্তু হবে দুর্নীতিমুক্ত উন্নয়ন। তিনি বলেন, তাতে থাকবে শিক্ষা স্বাস্থ্য ও কর্মসংস্থানের নিশ্চয়তা। খসরু বলেন, জনকল্যাণমূলক রাষ্ট্রের জন্য ইশতেহার প্রস্তত করছে বিএনপি। খুব শিগগিরই সেটি প্রকাশ করা হবে। নির্বাচনের জন্য এখনও লেভেলপ্লেয়িং ফিল্ড হয়নি মন্তব্য করে খসরু বলেন, ‘আমরা যে সাতটি দফা দিয়েছিলাম তার একটিও মানা হয়নি। তারপরও আমরা নির্বাচনে আছি। আশা করছি সবার জন্য সমান সুযোগ সৃষ্টি হবে। জনগণ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনবে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ