ঢাকা, সোমবার 3 December 2018, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

সম্মিলিত প্রচেষ্টায় শীতার্ত মানুষের কষ্ট লাঘব করা সম্ভব -শিবির সভাপতি

গতকাল রোববার রাজধানীর বাড্ডা এলাকায় শীতবস্ত্র বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধন ও শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেন, ঋতুর পরিবর্তন স্বাভাবিক বিষয় হলেও দায়িত্বহীনতার কারণে শীতকাল গরীব অসহায় মানুষের জন্য সীমাহীন দুর্ভোগের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। কিন্তু এ দুর্ভোগ দূর করা অসম্ভব কিছু নয়। শীতার্তদের এড়িয়ে যাওয়া অনাকাক্সিক্ষত। সম্মিলিত প্রচেষ্টায় শীতার্ত মানুষের কষ্ট লাঘব করা সম্ভব।
গতকাল রোববার রাজধানীর বাড্ডা এলাকায় কেন্দ্র ঘোষিত পক্ষকালব্যাপী শীতবস্ত্র বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধন ও শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, সাহিত্য সম্পাদক সালাউদ্দিন আইয়ুবি, ঢাকা মহানগরী উত্তরের সভাপতি আজিজুল ইসলাম সজিবসহ কেন্দ্রীয় ও মহানগরীর নেতৃবৃন্দ।
শিবির সভাপতি বলেন, শীতে বাংলাদেশে করুণ দৃশ্যের অবতারণা হয়। প্রতি বছরই জনসংখ্যার একটি বিশাল অংশ শীতে নিদারুণ কষ্ট ভোগ করে। জনগণের কষ্ট লাঘবের দায়িত্ব সরকারের। কিন্তু বরাবরই সরকার এসব গরীব অসহায়দের কষ্টকে পাশ কাটিয়ে গেছে। এবারও তার ব্যতিক্রম হবে বলে মনে হয় না। কিন্তু শুধু সরকারের উপর দায় চাপিয়ে সবার হাত গুটিয়ে বসে থাকা উচিত নয়। বাংলাদেশ একটি মুসলীম প্রধান দেশ। আর একজনের কষ্টে অন্য জনের হাত বাড়িয়ে দেয়া প্রত্যেকটি মুসলমানের ঈমানি দায়িত্ব। শীতার্তদের কষ্ট দূর করতে বিত্তবান হওয়া শর্ত নয়। সমাজের সকল শ্রেণী-পেশার মানুষ যদি যার যার সাধ্য অনুযায়ী তার পাশের শীতার্ত মানুষটির পাশে দাঁড়ায় তাহলে সহজেই শীতের কষ্ট লাঘব করা সম্ভব। সামর্থ ও সুযোগ থাকার পরও শীতার্তদের পাশ কাটিয়ে যাওয়া অমানবিক ও অবিবেচকের কাজ।
তিনি বলেন, সমাজের প্রতি দায়িত্ববোধ থেকেই ছাত্রশিবির প্রতিবছরের ন্যায় এবারও পক্ষকাল ব্যাপি শীতবস্ত্র বিতরণ কর্মসূচি ঘোষনা করেছে। সারাদেশে একজন নেতাকর্মীও যেন এ কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ থেকে বিরত না থাকে সে দিকে বিশেষ ভাবে খেয়াল রাখতে হবে। আমরা আশা করি এ কর্মসূচি এক দিকে যেমন শীতার্ত মানুষের একটি বিরাট অংশের শীতের কষ্ট দূর করবে তেমনি সমাজের অন্যান্যদেরও এ মহান কাজে অংশ গ্রহণের জন্য উৎসাহিত করবে।
উল্লেখ্য, প্রতি বছরের ন্যায় এবারও পক্ষকালব্যাপী শীতবস্ত্র বিতরণ কর্মসূচি ঘোষনা করেছে ছাত্রশিবির। ১ থেকে ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ পর্যন্ত সারাদেশে একযোগে এ কর্মসূচি পালিত হবে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, প্রত্যেক জনশক্তি কমপক্ষে ১টি শীতবস্ত্রব বিতরণ করবে, অসহায় ও দরিদ্র ছাত্রদের অগ্রাধিকার প্রদান, ফুটপাত, রেলস্টেশন ও বস্তি এলাকার ছাত্রদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ, এতিম, পথশিশু, ছিন্নমূল ও অসহায় মানুষদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দরিদ্র কর্মচারী ও তাদের সন্তানদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ, শীতবস্ত্র বিতরণে বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও সাধারন মানুষকে উদ্বুদ্বকরণ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ