ঢাকা, শুক্রবার 7 December 2018, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ২৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

প্রস্তুতি ম্যাচের পারফরম্যান্সে আমি সন্তুষ্ট ----প্রধান নির্বাচক 

স্পোর্টস রিপোর্টার : বিকেএসপিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৫০ ওভারের প্রস্তুতি ম্যাচে ৭৩ বলে ১৩ চার ও তিন ছক্কায় খেলেছেন ১০৭ রানের অসাধারণ ইনিংস। তামিমের পাশাপাশি সেঞ্চুরি পেয়েছেন সৌম্য সরকারও। তাতে ইন্ডিজকে ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে ৫১ রানে হারিয়েছে বিসিবি একাদশ। আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে ৩৩১ রান করেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জবাবে বিসিবি একাদশ ৪১ ওভারে ৬ উইকেটে ৩১৪ রান তোলার পর আলোকস্বল্পতায় খেলা আর এগোয়নি। সব মিলিয়ে প্রস্তুতি ম্যাচের পারফরম্যান্সে সন্তুষ্ট প্রধান নির্বাচক। বিকেএসপিতে মিনহাজুল সাংবাদিকদের বলেন, ‘প্রস্তুতি ম্যাচে যেটা প্রত্যাশা থাকে যে, সবার ব্যাটিং, বোলিং এবং ফিল্ডিং সবদিক থেকে উন্নতি হয়। সেদিক থেকে আমার মনে হয় আমাদের প্রস্তুতিটি ভালোই হয়েছে। উইন্ডিজ কিন্তু ওয়ানডেতে ভালো দল। শর্টার ফরম্যাটে ওদের সব পরীক্ষিত পারফরমার আছে। সেই হিসেবে আমাদের জন্য এটি অনেক চ্যালেঞ্জিং একটি সিরিজ। প্রস্তুতি ম্যাচটি ভালো হওয়ায় আমরা সন্তুষ্ট।’ চোট কাটিয়ে ফিরে প্রস্তুতি ম্যাচে দারুণ এক সেঞ্চুরি করেছেন তামিম ইকবাল। তার এই সেঞ্চুরিকে বাড়তি পাওয়া হিসেবে দেখছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। গত ১৫ সেপ্টেম্বর এশিয়া কাপের প্রথম ম্যাচে কবজিতে চোট পেয়ে মাঠের বাইরে ছিটকে গিয়েছিলেন তামিম। আড়াই মাসেরও বেশি সময় পর বৃহস্পতিবার প্রথম ম্যাচ খেলতে নামেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। তামিমের সেঞ্চুরি নিয়ে প্রধান নির্বাচকের ভাষ্য, ‘আমাদের কিছু খেলোয়াড় যেমন তামিম ইকবাল অনেক দিন পরে খেলছে, শতক করেছে। তো এটা অনেক বড় একটি প্লাস পয়েন্ট। সবকিছু মিলিয়ে দল পুরোপুরি প্রস্তুত আছে। সামনে আমরা ওয়ানডে সিরিজে ভালো করব টেস্ট সিরিজের মতো।' তামিম ইকবালের অনুপস্থিতিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে ওপেনিংয়ে ভালো করেছেন লিটন দাস ও ইমরুল কায়েস। যেখানে ইমরুল করেন দুটি সেঞ্চুরি, লিটন এক ম্যাচে করেন ফিফটি। সৌম্য শেষ ম্যাচে তিন নম্বরে নেমে করেন সেঞ্চুরি। এবার ফিরছেন তামিমও। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তামিমের ওপেনিং সঙ্গী ঠিক করা নিয়ে তাই মধুর সমস্যায় পড়তে হচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্টকে। তবে এটাকে দলের জন্য ইতিবাচক হিসেবেই দেখছেন মিনহাজুল, ‘এটি দলের জন্য অনেক ভালো একটি লক্ষণ। ব্যাকআপ ক্রিকেটাররাও যথেষ্ট ভালো অবস্থানে আছে। আর একটি প্রতিযোগিতার মধ্যে থাকলে দল সব সময় একটি ভালো অবস্থানে থাকে। অবশ্যই আমি মনে করি যে একটি প্রতিযোগিতা থাকা ভালো। আর যখন যাকে দরকার হবে তখনই খেলানো হবে। এই বিষয়ে (ওপেনিং জুটি) আলোচনা হচ্ছে। এখনো ঠিক করা হয়নি তামিমের সাথে কে ওপেন করবে। এটা আগামীকাল ঠিক করা হবে।' প্রস্তুতি ম্যাচের বোলিং পারফরম্যান্স নিয়ে প্রধান নির্বাচক বলেন, 'বিকেএসপির এই ফ্ল্যাট ট্র্যাকে তো বোলিং সেভাবে বোঝা যায় না। যেহেতু আমরা মিরপুরে খেলব। সেই হিসেবে সেখানকার পিচের ধারণা করে দল সাজানো হবে যে তিনটি পেসার নাকি স্পিনার খেলবে। এটি আসলে টিম ম্যানেজমেন্টের অংশ, নির্বাচকদের অংশ না। একটি আলোচনা হবে। তবে যেটি দলের জন্য ভালো হবে সেটাই করা হবে।’

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ