ঢাকা, শুক্রবার 7 December 2018, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ২৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী
Online Edition

অযোধ্যায় ২৫ হাজার পুলিশ মোতায়েন

৬ ডিসেম্বর, ইন্টারনেট : ভারতের উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যায় ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদ ধ্বংসের বর্ষপূর্তি ঘিরে শহরে সহিংসতার আশঙ্কা প্রকাশ করেছে রাজ্য পুলিশ। ২৬ বছর আগে ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর বাবরি মসজিদ ধ্বংস করে দেশটির উগ্রপন্থী হিন্দুরা। বৃহস্পতিবার বাবরি মসজিদ ধ্বংসের বর্ষপূর্তিকে কেন্দ্র করে শহরে অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। স্থানীয় প্রশাসন বলছে, যেকোনো ধরনের বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে প্রশাসন কাজ করছে। সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের গ্রেফতারে পুলিশকে দেয়া হয়েছে সবুজ সংকেত। ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, প্রত্যেক বছরের ৬ ডিসেম্বর দিনটিকে ভারতের কট্টর হিন্দুত্ববাদীদের সংগঠন বিশ্ব হিন্দু পরিষদ ও বজরং দল ‘শৌর্য দিবস’ ও ‘বিজয় দিবস’ হিসেবে পালন করে। অন্যদিকে মুসলিম সম্প্রদায় দিনটিকে ‘ইয়াম-ই-গম’ (দুঃখের দিন) ও ‘ইয়াম-ই-শ’ (কাল দিবস) হিসেবে পালন করে। দুই সম্প্রদায়ের ভিন্ন ভিন্ন উদযাপনকে কেন্দ্র করে যাতে কোনো ধরনে সংঘাত কিংবা সহিংসতার ঘটনা না ঘটে সেজন্য অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিশ। রাজ্য পুলিশ বলছে, দুই সম্প্রদায়ের মানুষের উদযাপন সুশৃঙ্খলভাবে সম্পন্ন করতে সহায়তার জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

ফৈজাবাদ জেলার পুলিশ সুপার অনিল সিং বলেছেন, ফৈজাবাদ এবং অযোধ্যায় প্রায় ২৫ হাজার পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়াও আধা-সামরিক বাহিনীও মোতায়েন রয়েছে। উল্লেখ্য, মুঘল সম্রাট বাবরের নির্দেশে ১৫২৮-২৯ সালে অযোদ্ধায় ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদ নির্মাণ করেন মীর বাকি। ষোড়শ শতকের ঐতিহাসিক এই মসজিদে হামলা চালিয়ে ভারতের উগ্রপন্থী হিন্দু কর সেবক গোষ্ঠীর সদস্যরা ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর ধ্বংস করে।

অনলাইন আপডেট

আর্কাইভ